kalerkantho

সোমবার । ৯ কার্তিক ১৪২৮। ২৫ অক্টোবর ২০২১। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বনকর্মীরা ধরে নিয়ে গিয়েছিল, ২২ কিমি পেরিয়ে ফিরে এলো হনুমান

অনলাইন ডেস্ক   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৪:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বনকর্মীরা ধরে নিয়ে গিয়েছিল, ২২ কিমি পেরিয়ে ফিরে এলো হনুমান

প্রতীকী ছবি

কখনো বাড়ি থেকে খাবার চুরি করছিল, আবার কখনো বাচ্চাদের হাত থেকে খাবার কেড়ে নিচ্ছিল, তো আবার কখনো গাছের ফল নষ্ট করে দিচ্ছিল। দীর্ঘদিন ধরে এক হনুমানের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠছিল গ্রামের মানুষ।

হনুমানের অত্যাচার থেকে মুক্তি পেতে শেষ পর্যন্ত বন দপ্তরকে খবর দিয়েছিলেন ভারতের কর্ণটকের চিকমাগালুর জেলার কোট্টিহেগরা গ্রামের বাসিন্দারা।

জানা গেছে, বন দপ্তর হনুমানটি ধরার জন্য ফাঁদ পাতে। কিন্তু কিছুতেই তাকে ধরতে পারছিলেন না বনকর্মীরা। 

জগদীশ নামে একজন অটোচালক জানান, হনুমানটিকে ধরতে যাওয়ার সময় তার ওপর হামলা চালিয়েছিল। হাতে কামড় দিয়েছিল। নিজেকে হামলা থেকে বাঁচাতে অটোর ভেতরে লুকিয়ে ছিলেন জগদীশ। 

তবে সেখানে গিয়েও হামলা চালানোর চেষ্টা করে হনুমানটি। জগদীশ বাড়ির দিকে দৌড় দিতেই তার পেছন পেছন হনুমানটি তাড়া করেছিল।

শেষে গত ১৬ সেপ্টেম্বর গ্রামবাসী এবং স্থানীয় অটোচালকদের সহযোগিতায় হনুমানটিকে ফাঁদে ফেলেন বন দপ্তরের কর্মীরা। তারপর ওই গ্রাম থেকে ২২ কিলোমিটার দূরে বালুর জঙ্গলে গিয়ে তাকে ছেড়ে দিয়ে আসেন তারা।

গ্রামের বাসিন্দারা ভেবেছিলেন, আর তাদের হনুমানের জ্বালা সহ্য করতে হবে না। কিন্তু তাদের সেই ধারণা ভুল প্রমাণ করে আবারও ওই হনুমান গ্রামে হাজির হওয়ায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে। সবেমাত্র ওই গ্রামে স্কুল খুলেছে। শিক্ষার্থীরা স্কুলে যাওয়া শুরু করেছে। আবারও হনুমানটির আগমনে তারা আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। আবার বন দপ্তরের কাছে খবর দেওয়া হয়।

হনুমানটি গ্রামে ফিরে আসার খবর পেয়ে বাড়ি থেকে বের হওয়া বন্ধ করে দেন জগদীশ। তিনি বলেন, আবার ওই হনুমানের আসার খবর শুনে আমি বাড়ি থেকে বের হওয়া বন্ধ করে দিয়েছি। আমার ওপর আবার হামলা চালাতে পারে সে। বন দপ্তরকে খবর দিয়েছি হনুমানটিকে ধরে নিয়ে যাওয়ার জন্য।

তবে বন দপ্তরের কর্মীরা জানিয়েছেন, ঠিক কী কারণে ওই অটোচালকের ওপরেই হামলা চালিয়েছিল হনুমানটি তা জানা যায়নি। হয়তো আগে কোনো দিন হনুমানটির ক্ষতি করেছিলেন ওই অটোচালক। সে কারণেই তার ওপর হামলা চালিয়েছিল। 

তবে এমন ঘটনা আগে দেখা যায়নি। ছেড়ে দিয়ে আসার পর ২২ কিমি পথ পেরিয়ে ফের একই জায়গায় এসেছে হনুমান। 

গ্রামবাসীদের দাবি, ‘বদলা’ নিতেই আবারও তাদের গ্রামে হাজির হয়েছে হনুমান। তবে এবার হনুমানটিকে ধরে জঙ্গলের আরও গভীরে ছেড়ে দিয়ে এসেছেন বনকর্মীরা।
সূত্র : আনন্দবাজার।



সাতদিনের সেরা