kalerkantho

শনিবার । ৩১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ অক্টোবর ২০২১। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মেয়ে হওয়ায় ক্রেতাদের বিনা মূল্যে ফুচকা খাওয়ালেন বিক্রেতা

অনলাইন ডেস্ক   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৬:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মেয়ে হওয়ায় ক্রেতাদের বিনা মূল্যে ফুচকা খাওয়ালেন বিক্রেতা

ভারতে কন্যাসন্তানের জন্ম দিলে আজও অনেক পরিবারে মাকে কথা শুনতে হয়। অনেক ক্ষেত্রে স্বামীরাও নিজের কন্যাসন্তানকে মেনে নিতে না পেরে স্ত্রীকে দোষারোপ করেন। নবজাতক কন্যা হত্যার ঘটনাও অনেকে দেশে ঘটে। তবে এর বিপরীত চিত্রও আছে। মেয়ে হলে যে অনেক পরিবারে খুশির বন্যা বয়ে যায় তারই প্রমাণ দিলেন এক ফুচকা বিক্রেতা। কন্যাসন্তান জন্মের খুশিতে শত শত মানুষকে বিনা মূল্যে ফুচকা খাইয়েছেন তিনি! ফুচকা খাওয়াতে তার ৫০ হাজার রুপিরও বেশি খরচ হয়েছে।

ঘটনাটি ভারতের ভূপালের। অঞ্চল গুপ্ত নামের ওই ফুচকা বিক্রেতা ভূপালের কোলার এলাকায় ফুচকা বিক্রি করেন। মাত্র অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়েছেন তিনি। কিন্তু পুঁথিগত বিদ্যা না থাকলেও একজন উচ্চ শিক্ষিতকেও ছাপিয়ে যেতে পারেন নিজের উচ্চ চিন্তাধারা দিয়ে। চলতি বছরের ১৭ আগস্ট তার কন্যাসন্তানের জন্ম হয়। এটি অঞ্চলের দ্বিতীয় সন্তান। বছর দুয়েক আগে তার স্ত্রী এক পুত্রসন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন। সেবারও কন্যাসন্তান চেয়েছিলেন অঞ্চল। দ্বিতীয় সন্তান কন্যা হওয়ায় স্বপ্নপূরণ হয় তার।

অঞ্চল বলেন, যখন খবর পেলাম আমার মেয়ে হয়েছে তখন খুবই খুশি হয়েছি। কিছু লোক অবশ্য মেয়ে হওয়ার খবরে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছিলেন। তাদের মধ্যে কেউ কেউ বলেছিল, মেয়েসন্তান বোঝার মতো। তিনি আরো বলেন, আমার আয় খুবই সীমিত। কিন্তু যারা মেয়েসন্তানকে বোঝা মনে করে, তাদেরকে বার্তা দেওয়ার জন্য আমি বিনা মূল্যে ফুচকা খাওয়ানোর আয়োজন করি। অঞ্চল বলেন, আমি গর্বিত আমার মেয়ে আছে বলে।

কন্যাসন্তানের জন্মোৎসব পালন করতে বিনা মূল্যে ফুচকা খাওয়ানোর কথা জানিয়ে দোকানে একটি বোর্ডও ঝুলিয়ে দিয়েছিলেন অঞ্চল। এদিকে বিনা মূল্যে ফুচকা খাওয়ার খবর ঝড়ের গতিতে সারা ভূপালে ছড়িয়ে পড়ে। ওই দিন বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অঞ্চলের দোকানের সামনে রীতিমতো ফুচকাপ্রেমীদের লাইন পড়ে গিয়েছিল।

রাস্তার পাশে যেখানে ফুচকার ঠেলাগাড়ি নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন তিনি, তার পাশেই বসে খাওয়ার ব্যবস্থা করেছিলেন অঞ্চল। কয়েকটি টেবিল পেতে দিয়েছিলেন। প্রতি টেবিলে এক ঝুড়ি করে ফুচকা এবং তেঁতুল পানি ও অন্যান্য সামগ্রী রেখে দিয়েছিলেন। পাশাপাশি করোনা সংক্রমণ এড়াতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য ক্রেতাদের সতর্কও করেন তিনি।

সূত্র : ইন্ডিয়া টিভি।



সাতদিনের সেরা