kalerkantho

রবিবার । ৮ কার্তিক ১৪২৮। ২৪ অক্টোবর ২০২১। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

নারীদের শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা ইসলাম পরিপন্থী : ইমরান খান

অনলাইন ডেস্ক   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১১:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারীদের শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা ইসলাম পরিপন্থী : ইমরান খান

আফগানিস্তানে নারীদেরকে শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা ইসলাম পরিপন্থী  বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান । পাকিস্তানের আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি আদায় করতে  তালেবান সরকারকে কী কী করতে হবে তার বিস্তারিত বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তুলে ধরেন তিনি।

ইমরান খান বলেন, আফগানিস্তানের উচিত না নিজের দেশকে সন্ত্রাসের ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার হতে দেওয়া। এর ফলে পাকিস্তানের নিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়বে।

গেল সপ্তাহে তালেবান নেতৃত্বে স্কুল খুললেও মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি। শিক্ষকতার কাজে ফিরে যাওয়ার অনুমতি পেয়েছেন শুধু পুরুষ শিক্ষকরা। এদিকে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'ক্ষমতায় আসার পর থেকে তারা যেসব বিবৃতি দিয়েছে সেগুলো খুবই উৎসাহব্যঞ্জক। আমি মনে করি, তারা মেয়েদের স্কুলে যাওয়ার অনুমতি দেবে।' তিনি আরো বলেন, শিক্ষার সঙ্গে ধর্মের কোনো সম্পর্ক নেই।

গত আগস্টে তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকেই আশঙ্কা বাড়ছিল যে দেশটিতে ১৯৯০-এর দশকের মতো একটি রাষ্ট্রব্যবস্থা ফিরে আসবে, যেখানে কট্টর ইসলামপন্থীরা নারীদের অধিকারকে চূড়ান্তভাবে খর্ব করেছিল। এদিকে তালেবান বলে আসছে, নারীদের অধিকারকে সম্মান করা হবে, তবে তা ইসলামের আইনের বিধি-বিধান অনুযায়ী।

গত সপ্তাহে আফগানিস্তানে মেয়েদেরকে বাদ রেখে স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত আন্তর্জাতিক মহলে শোরগোল ফেলে দেয়। পরে তালেবান মুখপাত্র বলেন, মেয়েদেরকে যত দ্রুত সম্ভব স্কুলে ফেরানো হবে। কিন্তু এটা স্পষ্ট হয়নি, কবে নাগাদ স্কুলে ফিরতে পারবে তারা এবং তাদেরকে যদি শ্রেণিকক্ষে ফিরতে দেওয়া হয় তাহলে ঠিক কী ধরনের শিক্ষার সুযোগ তারা পাবে।

সব শেষে ইমরান খান বলেন, ‘পার্শ্ববর্তী অন্যান্য দেশের সঙ্গে মিলে পাকিস্তান সিদ্ধান্ত নেবে তারা তালেবান সরকারকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দেবে কি না। সব প্রতিবেশী একত্র হয়ে দেখবে, তাদের কতটা উন্নতি হচ্ছে। তাদের স্বীকৃতি দেওয়া না দেওয়া হবে একটি সমন্বিত সিদ্ধান্ত।’

 



সাতদিনের সেরা