kalerkantho

শনিবার । ৩১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ অক্টোবর ২০২১। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মহাকাশ ঘুরে এলেন চার সাধারণ পর্যটক

অনলাইন ডেস্ক   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১১:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মহাকাশ ঘুরে এলেন চার সাধারণ পর্যটক

টানা তিন দিন মহাকাশ ভ্রমণ শেষে পৃথিবীতে ফিরে এসেছেন চারজন পর্যটক। স্থানীয় সময় শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা উপকূলে নিরাপদে অবতরণ করেন তারা। খবর বিবিসির।

জানা গেছে, তিন দিনের এই ভ্রমণে এবারই প্রথম কোনো সাধারণ পর্যটক হিসেবে মহাকাশ ও পৃথিবীর কক্ষপথে পরিভ্রমণ করে নিরাপদে ফিরে এলেন তারা।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গত বুধবার ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে ওই চারজন বেসামরিক নাগরিককে নিয়ে পৃথিবীর কক্ষপথের উদ্দেশে রওনা হয় স্পেসএক্সের ফ্যালকন নাইন রকেটটি। আর এ মহাকাশযাত্রার নাম দেওয়া হয় ইন্সপিরেশন ফোর।

জানা গেছে, শিফটফোর পেমেন্টের মালিক ৩৮ বছর বয়সী হাই স্কুল ড্রপআউট জ্যারেড আইস্যাকম্যান পুরো ট্রিপ স্পন্সর করেছেন। তার সঙ্গে ছিলেন পেশায় নার্স হেইলি আর্সেনাও, বাল্য অবস্থায় যিনি বোন ক্যান্সারকে জয় করেছেন। তিনিই মহাকাশে যাওয়া সবচেয়ে কম বয়সী মার্কিন। এ ছাড়া ছিলেন এয়ারোস্পেস ডাটা ইঞ্জিনিয়ার ক্রিস সিমব্রস্কি ও ভূবিজ্ঞানী সিয়ান প্রক্টর।

এই মহাকাশ অভিযানের নাম দেওয়া হয়েছে- ইনস্পিরেশন ৪। কারণ, চারজনের এই মহাকাশ অভিযান ভবিষ্যতে অন্যদের প্রেরণা দেবে।

চারজন স্পেসএক্স ড্রাগনে বসার পর যাত্রা শুরু হয়। ১২ মিনিট পর ফ্যালকন ৯ রকেটের দ্বিতীয় পর্যায় চালু হয়। ফ্লোরিডায় নাসার মহাকাশ কেন্দ্র থেকে স্পেসএক্সের রকেটের যাত্রা শুরু হয়। সেখান থেকেই চাঁদে যাত্রা করেছিল অ্যাপোলো ১১।

আগেই জানানো হয়েছিল, মহাকাশযাত্রা শেষ করে ফ্লোরিডায়ই ফিরবেন চারজন। ফেরার সময় প্যারাশুট খুলে গতি কমানোর কথা ছিল মহাকাশযানের।

স্পেস এক্সের এই মহাকাশ অভিযানে নতুন দিগন্ত খুলে গেল। সাধারণ মানুষ মহাকাশ অভিযান করতে পারল এবং ভবিষ্যতেও পারবে। 

এই অভিযান দেখিয়ে দিল মহাকাশ অভিযানের জন্য পেশাদার নভোচরী হওয়ার দরকার নেই। এই মহাকাশ অভিযানের পর স্পেস এক্সের দাবি, মানবিকতার নতুন দিগন্ত খুলে গেল।
সূত্র : বিবিসি।



সাতদিনের সেরা