kalerkantho

রবিবার । ৪ আশ্বিন ১৪২৮। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১১ সফর ১৪৪৩

বিজয় মালিয়াকে দেউলিয়া ঘোষণা, রায় চ্যালেঞ্জের অনুমতিও খারিজ

অনলাইন ডেস্ক   

২৯ জুলাই, ২০২১ ১১:০৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিজয় মালিয়াকে দেউলিয়া ঘোষণা, রায় চ্যালেঞ্জের অনুমতিও খারিজ

আইনের ফাঁকফোকর গলে জামিন পেয়েছেন বিজয় মালিয়া। তবে ব্রিটেনের আদালতে গোত্তা খেলেন পলাতক শিল্পপতি বিজয় মালিয়া। তাকে দেউলিয়া ঘোষণা করেছেন আদালত। 

ফলে ভারতে ও বিদেশে তার যাবতীয় সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে অনাদায়ী ঋণের টাকা উদ্ধার করতে পারবে স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া নেতৃত্বাধীন ভারতীয় ব্যাংকগুলোর কনসোর্টিয়াম। 

আর তাতেই চটেছেন মালিয়া। ছয় হাজার কোটির অনাদায়ী ঋণের টাকা উদ্ধার করতে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) তার ১৪ হাজার টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করছে বলে অভিযোগ মালিয়ার।

গত সোমবার মালিয়াকে দেউলিয়া ঘোষণা করেন লন্ডন হাই কোর্টের বিশেষ ডিভিশন বেঞ্চের বিচারপতি মাইকেল ব্রিগস। তিনি বলেন, দুপুর ৩ টা ৪২ মিনিটে (স্থানীয় সময়) শ্রীযুক্ত মালিয়াকে দেউলিয়া ঘোষণা করলাম আমি।

আদালত কক্ষেই তার এই নির্দেশের বিরোধিতা করেন মালিয়ার আইনজীবী। ব্যাংকগুলোকে সুবিধা পাইয়ে দিতেই মালিয়াকে দেউলিয়া ঘোষণা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তারা। 

দেউলিয়া ঘোষণার রায়কে চ্যালেঞ্জ জানানোর অনুমতিও চান মালিয়ার আইনজীবী ফিলিপ মার্শাল। কিন্তু তা খারিজ করে দেয় আদালত।

এর পরই সামাজিক যোগাযোগের মাশ্যদগুলোতে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে মুখ খোলেন মালিয়া নিজেও। 

রাত পৌনে ১২টা নাগাদ টুইটারে তিনি লেখেন, রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের কাছে আমার ছয় হাজার ২০০ কোটি টাকার ঋণ রয়েছে তার পরিপ্রেক্ষিতে ইডি আমার ১৪ হাজার কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করছে। ব্যাংকের হাতে তা তুলে দিলে, নগদ ৯ হাজার কোটি টাকা উদ্ধার হবে। পাঁচ হাজার কোটি টাকার রাখা হবে জামানত হিসেবে। আমাকে দেউলিয়া ঘোষণা করার জন্য ব্যাংকগুলো আদালতে আবেদন করেছে। কারণ ভবিষ্যতে তাদের ওই টাকা ইডি-কে দিতে হতে পারে। অবিশ্বাস্য!

মালিয়াকে দেউলিয়া ঘোষণা করতে ব্রিটেনের আদালতে আবেদন জানিয়েছিল স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া নেতৃত্বাধীন ১৩টি ব্যাংকের কনসোর্টিয়াম, যার মধ্যে ছিল স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া, ব্যাংক অব বরোদা, কর্পোরেশন ব্যাংক, ফেডারেল ব্যাংক লিমিটেড, আইডিবিআই ব্যাংক, ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাংক, জম্মু ও কাশ্মীর ব্যাংক, পাঞ্জাব অ্যান্ড সিন্ধু ব্যাংক, পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক, স্টেট ব্যাংক অব মাইসোর, ইউকো ব্যাংক, ইউনাইটেড ব্যাংক অব ইন্ডিয়া এবং জেএম ফিনানশিয়াল রিকনস্ট্রাকশন কো প্রাইভেট লিমিটেড। আদালত তাতে সায় দেওয়ায় স্বস্তি সরকারেও। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হর্ষবর্ধন শ্রিংলার মতে, মালিয়ার ক্ষেত্রে অত্যন্ত বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়েছে ভারত।

তবে দেউলিয়া ঘোষিত হলেও, আপাতত ব্রিটেনেই থাকছেন মালিয়া। কারণ এই মামলার সঙ্গে প্রত্যর্পণের কোনো সম্পর্ক নেই।

সূত্র : ইন্ডিয়া টুডে।



সাতদিনের সেরা