kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩০ জুলাই ২০২১। ১৯ জিলহজ ১৪৪২

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় জাতিগত উত্তেজনার কারণ হতে পারে চীনের ‘লুয়ে গুইজেন’ নীতি

অনলাইন ডেস্ক   

২১ জুন, ২০২১ ১২:০২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় জাতিগত উত্তেজনার কারণ হতে পারে চীনের ‘লুয়ে গুইজেন’ নীতি

চীনাদের প্রতি বেইজিং আহ্বান জানিয়েছে, সবাই যেন 'লুয়ে গুইজেন' পলিসি (শেকড়ে ফেরার নীতি) মেনে চলে। বিদেশে চীনা জনগণকে চীনের স্বার্থে কাজ করার ব্যাপারেও আহ্বান জানানো হয়েছে।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, চীনের লুয়ে গুইজেন নীতি ‘হুয়াকিয়াও’ (বিদেশে অবস্থানরত চীনা নাগরিক) এবং ‘হুয়ারেন’ (চীনা বংশোদ্ভূত বিদেশি নাগরিক) মধ্যে পার্থক্যকে ঝাপসা করে দিয়েছে। 

দেশটি ২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিকে সহায়তা করার জন্য এবং বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ (বিআরআই) এ সবার প্রতি সহযোগিতার আহ্বান জানিয়েছিল। হুয়াকিয়াও এবং হুয়ারেন-দের চীনে ফিরে গিয়ে দেশের সঙ্গে দৃঢ় সম্পর্ক গড়ে তোলার আহ্বানও জানানো হয়।

তবে, বেইজিংয়ের নতুন নীতিটি কিছু দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় দেশের সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারেনি। জানা গেছে, সেসব দেশে চীনা জাতিগোষ্ঠী স্থানীয় হয়ে গেছে এবং তারা স্থানীয় রাজনীতিতে অংশ নিচ্ছে।

চীনের লুয়ে গুইজেন নীতির ব্যাপারে লিও সুরিয়াদিনাতা বলেছেন, চীনের এই নতুন নীতি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার চীনা পরিচয়কে প্রভাবিত করতে পারে। এতে করে জাতিগত উত্তেজনা সৃষ্টি হতে পারে। যা ঘরোয়া রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা নষ্ট করবে। 

তিনি আরো বলেন, এই নীতি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় নতুন চীনা অভিবাসীদের স্থানীয়ভাবে মিশে যাওয়ার ক্ষেত্রে আরো সমস্যা তৈরি করতে পারে।
সূত্র: এএনআই, জিফাইভ



সাতদিনের সেরা