kalerkantho

সোমবার । ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৭ মে ২০২১। ০৪ শাওয়াল ১৪৪

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন

পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতায় ১০ জন নিহত

অনলাইন ডেস্ক   

৪ মে, ২০২১ ১৮:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতায় ১০ জন নিহত

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতায় অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছেন। এ নিয়ে দলগুলোর মধ্যে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ শুরু হয়েছে। বিজেপি সহিংসতার জন্য তৃণমূল কংগ্রেসকে দায়ী করে বলেছে, তৃণমূল বড় জয় পাওয়ার পরেও এ ধরনের সহিংসতা অগ্রহণযোগ্য। তবে রাজ্যবাসীকে শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ মঙ্গলবার এ খবর জানা গেছে। এ পরিস্থিতিতে সহিংসতার বিষয়ে দিল্লি থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিবেদন চাওয়া হয়েছে রাজ্য প্রশাসনের কাছ থেকে।

গত রবিবার ভোট গণনায় তৃণমূল কংগ্রেস ২১৩টি আসনে জয় পেয়ে তৃতীয়বারের মতো পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতায় বসছে। নির্বাচন চলাকালে কয়েকটি জায়গায় সহিংসতা ও হতাহতের ঘটনা ঘটেছিল। তারই জের ধরে গত রবিবার ভোট গণনা শেষ হওয়ার পরপরই রাজ্যের বিভিন্ন জায়গার পরিস্থিতি সহিংস হয়ে ওঠে।

সরকারি সূত্রগুলো বরাতে বিবিসি জানিয়েছে, গত রবিবার বিকেল থেকে গত সোমবার রাত পর্যন্ত এসব সহিংসতায় অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছে। বেশ কিছু জায়গা থেকে বোমা, ভাঙচুর ও লুটতরাজেরও খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে পাঁচজনকে বিজেপি তাদের কর্মী বা সমর্থক দাবি করেছে। আর তৃণমূল বলছে, তাদের চার জন্য এবং ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফোর্স বা আইএসএফ বলছে, তাদেরও একজন নিহত হয়েছে প্রতিপক্ষের হামলায়।

পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, ‘এত বিপুল সমর্থন নিয়ে তৃণমূল জিতেছে তার পরেও কেন হিংসা। পুলিশের সামনে আগুন, লুটতরাজ হচ্ছে কিন্তু পুলিশ কিছু বলছে না। এটা মেনে নেওয়া যায় না।’ জানা গেছে, সহিংসতায় শীতলকুচি, দীনহাটায়, কলকাতায় ও দক্ষিণ-চব্বিশ পরগনায় একজন করে নিহত হয়েছে যাদের বিজেপি তাদের কর্মী দাবি করে এ হত্যাকাণ্ডের জন্য তৃণমূলকে দায়ী করেছে।

অন্যদিকে পূর্ব বর্ধমানে তিনজন নিহত হয়েছে যাদের নিজেদের কর্মী দাবি করে তাদের হত্যার জন্য বিজেপিকে দায়ী করেছে তৃণমূল। এ ছাড়া আব্বাস সিদ্দিকীর ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফোর্স বা আইএসএফ উত্তর চব্বিশ পরগনায় তাদের একজন কর্মীকে হত্যার জন্য তৃণমূলকে অভিযুক্ত করেছে। এদিকে নির্বাচনে জয়ী তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগামীকাল বুধবার সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে আবারও তৃতীয় মেয়াদে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন।

সূত্র : বিবিসি বাংলা।



সাতদিনের সেরা