kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

‘ভোটে হারছেন এটা নিশ্চিত’, মমতাকে উদ্দেশ্য করে মোদি

৬ এপ্রিল, ২০২১ ২০:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘ভোটে হারছেন এটা নিশ্চিত’, মমতাকে উদ্দেশ্য করে মোদি

অনিতা চৌধুরী, কলকাতা প্রতিনিধি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ‘মমতা জনসমক্ষে সব মুসলমানকে এক হতে আহ্বান করেছেন। বলেছেন, সব মুসলমান এক হও, ভোট ভাগ হতে দিও না। আপনি এসব বলছেন মানে আপনিও বুঝতে পারছেন, মুসলিম ভোটব্যাংকও আপনার হাতে নেই। মুসলিমরাও আপনার সঙ্গে নেই। আপনাকে জনসমক্ষে এসব বলতে হচ্ছে মানে আপনি ভোটে হারছেন এটা নিশ্চিত।’ আজ মঙ্গলবার কোচবিহারের এক জনসভায় এসব কথা বলেন নরেন্দ্র মোদি। 

জানা গেছে, পশ্চিমবঙ্গের জন বিন্যাসের নিরিখে এই মন্তব্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ কারণ রাজ্যের মোট ভোটের রায় ২৮ থেকে ৩০ শতাংশ মুসলমান ধর্মালম্বী। রাজ্যে ২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার পর মমতা বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে পিছিয়ে থাকা মুসলমান সম্প্রদায়ের উন্নতির চেষ্টা করেছেন। ভোটার বাক্সে বারবার প্রমাণ মিলেছে যে পশ্চিমবঙ্গের মুসলমান সম্প্রদায়ের অধিকাংশ মানুষ মমতাকে তাদের ভোট পেয়েছেন তা নিয়ে বিজেপি তাঁকে বিভিন্ন সময়ে নানাভাবে আক্রমণ করেছে। বিজেপির মূল অভিযোগ মমতার ভোটের জন্য মুসলমান ধর্মালম্বীদের তোষণ করেছে। 

কোচবিহারের সভায় আজ প্রধানমন্ত্রী অন্যভাবে মমতাকে আক্রমণ করেন। তিনি অভিযোগ করেন, মমতা যেমন বলছেন, তেমন যদি আমি বলতাম যে, সব হিন্দু এক হয়ে বিজেপিকে ভোট দাও, তাহলে নির্বাচন কমিশন তাঁর বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নিত। জানি না, কমিশন আপনাকে নোটিস দেবে কি না। কিন্তু আপনার বক্তব্য বলে দিচ্ছে আপনি হারছেন।

মোদির দাবি, মমতা যেভাবে কমিশন, ইভিএম এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীকে তোপ দাগছেন, তাতেই বোঝা যাচ্ছে তাঁর হার নিশ্চিত। তাছাড়া যে মুসলমানদের মমতা নিজের ভোট ব্যাংক মনে করতেন, তাঁরাও এখন তাঁর সঙ্গ ছাড়ছেন।

কোচবিহারের সভায় প্রধানমন্ত্রী দাবি করেছেন, মোদির অভিযোগ, মমতা যেমন বলছেন, তেমন যদি আমি বলতাম যে, সব হিন্দু এক হয়ে বিজেপিকে ভোট দাও, তাহলে নির্বাচন কমিশন আমাকে ৭ থেকে ৮ দিনের জন্য নোটিস দিয়ে দিত। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরেও নোটিস আসে। জানি না, কমিশন আপনাকে নোটিস দেবে কি না। কিন্তু আপনার বক্তব্য বলে দিচ্ছে আপনি হারছেন।



সাতদিনের সেরা