kalerkantho

সোমবার । ৬ বৈশাখ ১৪২৮। ১৯ এপ্রিল ২০২১। ৬ রমজান ১৪৪২

মমতা বললেন আমি জিতব, মোদি বললেন দিদির মুখ ‘এক্সিট পোল’

অনিতা চৌধুরী, কলকাতা প্রতিনিধি   

১ এপ্রিল, ২০২১ ২০:১০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মমতা বললেন আমি জিতব, মোদি বললেন দিদির মুখ ‘এক্সিট পোল’

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আজ নির্বাচনের দিন সবার চোখ ছিল নন্দীগ্রামে। আর সেখানেই সারাদিন ধরে ঘটল একের পর এক অপ্রত্যাশিত ঘটনা।

অভূতপূর্ব ঘটনার সাক্ষী থাকলো আজ নন্দীগ্রাম। বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে একরাশ অভিযোগ করে  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পৌঁছে গেলেন বয়াল অঞ্চলের আরেকটি বাড়িতে এবং সেখানে টানা দুই ঘণ্টা বসে রইলেন। সেখানে বসেই মমতা অভিযোগ করলেন,  ‘বুথে ছাপ্পা ভোট চলছে’ আর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর নির্দেশে কেন্দ্রীয় বাহিনী বিজেপিকে ভোট লুট করতে সাহায্য করছে।

‘‘এখানে ভোটটা চিটিংবাজি হয়েছে। ওরা (বিজেপি) অত্যাচার করেছে চূড়ান্ত। বিএসএফ, সিআরপিএফের মতো বাহিনী কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের দ্বারা নির্দেশিত। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাঁদের নির্দেশ দিচ্ছেন। বিজেপি-র পক্ষে ভোট করাতে বলা হচ্ছে। বহিরাগতদের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে"-বলেন মমতা।

তিনি বলেন,সকাল থেকেই একের পর এক অভিযোগ আসছিল যে, তৃণমূলের ভোটারদের বুথে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। ‘‘আমরা ইতিমধ্যে ৬৩টি অভিযোগ কমিশনে পাঠিয়েছি। কিন্তু কমিশন কিছু করছে না।”

নির্বাচন কমিশনের ভূমিকাতে ক্ষুব্ধ মমতা বলেন, তিনি নন্দীগ্রাম নিয়ে চিন্তিত নন। কারণ নন্দীগ্রামে তিনি জিতবেন মা, মাটি, মানুষের আশীর্বাদে।

"কিন্তু আমি চিন্তিত গণতন্ত্র নিয়ে...সকাল থেকে অনেকেই বলেছেন, ভোট দিতে পারছেন না," বলেন মমতা।

কোনো অভিযোগ নেই জানিয়ে নন্দীগ্রামের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন শান্তিপূর্ণ ও অবাধ ভোট হয়েছে। শুভেন্দু আরো বলেন, যেমন জয়ের ব্যাপারে তিনি নিশ্চিন্ত।

মমতা নিজের জয়ের ব্যাপারে কোনো সংশয় রাখেননি। তিনি দু’আঙুলে বিজয় চিহ্ন দেখিয়ে বলেন, ‘‘নন্দীগ্রামে তৃণমূল ৯০ শতাংশ ভোট পাবে।’’

নন্দীগ্রামের বয়ালে যখন মমতা বসে একের পর এক ফোন করছেন, ঠিক তখনই দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুরে জনসভা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।  তার পরেই হাওড়ার উলুবেড়িয়ায় জনসভা শুরু হল মোদীর। আর দুই সভাতেই মোদী টেনে নিয়ে এলেন নন্দীগ্রাম প্রসঙ্গ।

তিনি বলেন, ‘‘দিদিকে দেখুন। তা হলেই সব বুঝে যাবেন। দিদিই ওপিনিয়ন পোল, দিদিই এক্সিট পোল। ওঁর চোখ-মুখ, হাবভাবেই সব পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে।’’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা