kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৯ বৈশাখ ১৪২৮। ২২ এপ্রিল ২০২১। ৯ রমজান ১৪৪২

নারী দিবসে ২০০ বিক্ষোভকারীকে সারারাত আটকে রাখল মিয়ানমার পুলিশ

অনলাইন ডেস্ক   

৯ মার্চ, ২০২১ ১৬:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারী দিবসে ২০০ বিক্ষোভকারীকে সারারাত আটকে রাখল মিয়ানমার পুলিশ

মিয়ানমারের শহর ইয়াঙ্গুনের রাস্তায় অন্তত ২০০ বিক্ষোভকারীকে সারারাত আটকে রাখে দেশটির পুলিশ। সারা রাত আটকে থাকার পর আজ মঙ্গলবার ভোরে পালাতে সক্ষম হয়েছেন তারা। তবে পুলিশ ওই এলাকা থেকে অন্তত ৪০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। ইয়াঙ্গুনের সানচাং এলাকার একটি চৌরাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে আটকে পড়াদের মধ্যে অধিকাংশই ছিলেন নারী বিক্ষোভকারী।

গতকাল রাতে ইয়াঙ্গুনের সানচং জেলায় বিপুল সংখ্যক মানুষ কারফিউ উপেক্ষা রাস্তায় নেমে নিরাপত্তা বাহিনীর মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করে যাতে, আটকে পড়া বিক্ষোভকারীরা নিরাপদে বের হয়ে যেতে পারেন। তবে তাদের ওপর সাউন্ড গ্রেনেড ও ফাঁকা গুলি ছোড়ে নিরাপত্তা বাহিনী।

জাতিসংঘ প্রধান আন্তোনিও গুতেরেস জানিয়েছেন, ঐ এলাকা থেকে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে। এগুলো নিশ্চিতভাবেই স্টান গ্রেনেড ছিল। একইসঙ্গে তিনি আটকে পড়া নারীদের নিরাপদে মুক্তি দেওয়ার জন্য সামরিক জান্তার প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন। পরে আজ স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ছয়টায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে সোমবারও ইয়াঙ্গুনের বাড়িতে বাড়িতে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। শহরের বাইরের কেউ এখানে অবস্থান করে বিক্ষোভ করছে কিনা তা খতিয়ে দেখতেই এ অভিযান চালানো হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ, তল্লাশি চলাকালে অন্তত ২০ জনকে আটক করা হয়েছে।

এক বিক্ষোভকারী মং সাউংখা নিজের টুইটারে লিখেছেন, তিনি গতকাল সোমবার কোনোরকমে পুলিশের চোঁখ এড়িয়ে পালাতে পেরেছেন। তবে ২০০-এর বেশি বিক্ষোভকারীকে আটকে রেখেছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সেনাবাহিনী মিয়ানমারের ক্ষমতা দখল করে। নির্বাচিত নেত্রী সু চি ও এনএলডির অধিকাংশ নেতাকে হয় কারাগারে না হয় বাড়িতে বন্দি করে রেখেছে সেনাবাহিনী। সবমিলিয়ে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ১৮শ’র বেশি মানুষকে। অভ্যুত্থানের পর থেকেই মিয়ানমারজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এ পর্যন্ত সেনা সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে ৬০ জনেরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। 

সূত্র: বিবিসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা