kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৯ বৈশাখ ১৪২৮। ২২ এপ্রিল ২০২১। ৯ রমজান ১৪৪২

হাসতে হাসতে শেষ ভিডিও, একটু পর নদীতে ঝাঁপ দিল তরুণী

অনলাইন ডেস্ক   

১ মার্চ, ২০২১ ১৭:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাসতে হাসতে শেষ ভিডিও, একটু পর নদীতে ঝাঁপ দিল তরুণী

২৩ বছর বয়সী বিবাহিত তরুণী আয়েশা। ভারতের গুজরাটের আমদাবাদের সবরমতী নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। নদীতে ঝাঁপ দেওয়ার আগে হাসিমুখে তিনি বিশ্ববাসির জন্য একটি শেষ বার্তা, একটি ভিডিও রেকর্ড করেছেন। সেটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।  ভিডিওতে তিনি বলেন, যে চাপের মুখে তিনি কিছু করছেন না এবং তিনি সন্তুষ্ট যে তিনি আল্লাহর সাথে সাক্ষাত করবেন। ভিডিওটি তৈরির পরে, তিনি এটি তার পরিবারের কাছে পাঠিয়েছিলেন এবং তারপরে সেতু থেকে ঝাঁপিয়ে পড়েন নদীতে।

ভিডিও থেকে জানা গেছে, ওই তরুণীর নাম আয়েশা। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, নিজের ইচ্ছাতেই জীবন শেষ করছেন তিনি। তবে তার বাবার অভিযোগ, যৌতুকের জন্য শ্বশুরবাড়িতে প্রতিনিয়ত ঝামেলার জেরেই আত্মহত্যা করেছেন আয়েশা।

মেয়ের মৃত্যু নিয়ে আয়েশার বাবা লিয়াকত আলি জানিয়েছেন, রাজস্থানের জালোরের বাসিন্দা আরিফ খানের সঙ্গে তার মেয়ের বিয়ে হয়েছিল ২০১৮ সালের জুলাই মাসে। তিনি বলেন, বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য চাপ দিতে শুরু করেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন। সেময় আমি কিছু টাকা দিয়েছিলাম। কিন্তু তাদের লোভ এতে বেড়ে যায়। কয়েক মাস আগে আয়েশার সঙ্গে ঝামেলা হয় আরিফের। তার পর আয়েশা আমার বাড়িতে ফিরে আসে। এরপর ফোনেও কথা হতো না তাদের।

পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনা নিয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। নদীর তীর থেকে আয়েশার লাশও উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে আয়েশাকে বলতে শোনা গেছে, যে সিদ্ধান্ত আমি নিতে যাচ্ছি, এর জন্য কেউ আমাকে চাপ দেয়নি। বুঝলাম আল্লাহ আমাকে ছোট্ট জীবনই দিয়েছেন। বাবা, তুমি আর কত লড়বে? মামলা তুলে নাও। যে স্বাধীনতা চায়, তাকে মুক্ত করে দাও। ভিডিওর এক পর্যায়ে আয়েশা বলেন, আমি আমার জীবন শেষ করতে চলেছি। আল্লাহর সঙ্গে দেখা হবে ভেবে আমি খুশি। দেখা হলে তাকে জিজ্ঞাসা করব, আমি কী ভুল করেছি? আমার দোষ কী? 

সব শেষে আবেগতাড়িত হয়ে আয়েশাকে বলতে শোনা যায়, এই সুন্দর একলা নদীর কাছে আমার অনুরোধ, আমাকে যেন এই নদী নিজের মধ্যে প্রবেশ করতে দেয়। আমি হাওয়ার মতো উড়ে যেতে চাই। ভেসে যেতে চাই।

সূত্র: ইন্ডিয়া.কম।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা