kalerkantho

বুধবার । ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭। ৩ মার্চ ২০২১। ১৮ রজব ১৪৪২

নতুন রাজনৈতিক দল গঠন করতে পারেন ট্রাম্প

অনলাইন ডেস্ক   

২০ জানুয়ারি, ২০২১ ১৭:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নতুন রাজনৈতিক দল গঠন করতে পারেন ট্রাম্প

নির্বাচনে পরাজয়ের পর নতুন রাজনৈতিক দল গঠনের পরিকল্পনা করছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ট্রাম্প তার বিদায়ী ভাষণে, নতুন রাজনৈতিক দল গঠন করার কথা বলেছেন। তার দলের নাম হতে পারে 'প্যাট্রিয়ট পার্টি'। তার পরাজয়কে ঘিরে রিপাবলিকান পার্টির মধ্যে চলমান অন্তর্কোন্দলের মুখে ট্রাম্পের এমন চিন্তাভাবনার কথা জানিয়েছে মার্কিন গণমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে বলা হয়, ট্রাম্প ইতমধ্যে নতুন রাজনৈতিক দল গঠনের বিষয়ে তার ঘনিষ্ঠদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। স্থানীয় সময় গতকাল মঙ্গলবার রাতে হোয়াইট হাউজে তার বিদায়ী ভাষণে ট্রাম্প বলেন, রাজনৈতিকভাবে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে তা কিছুই না। এটা মাত্র শুরু। 

ইউটিউবে আপলোড করা এক ভিডিও বার্তায় ট্রাম্প বলেন, তাকে অনেক কঠিন লড়াইয়ের মোকাবেলা করতে হয়েছে। কারণ সেজন্যই তাকে নির্বাচিত করা হয়েছিল। তবে ট্রাম্প এখনো মনে করেন গত নভেম্বরের নির্বাচনে তিনি হারেননি। ভিডিওবার্তায় ট্রাম্প হোয়াইট হাউজের নতুন প্রতিনিধির নামও উল্লেখ করেননি।

যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিতে তৃতীয় দল গড়ে তোলার প্রচেষ্টা এটাই নতুন না, এর আগেও হয়েছে। তবে নতুন দল খোলার বিষয়ে ট্রাম্প কতখানি দৃঢ়প্রতিজ্ঞ তা এখনও পরিষ্কার নয়। তবে ২০১৬ সালে রিপাবলিকান পার্টির প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হওয়ার আগে ট্রাম্প সমর্থকগোষ্ঠীর বেশিরভাগকেই দলীয় কার্যক্রমে তেমন একটা দেখা যায়নি। ডোনাল্ড ট্রাম্প তার অতি রক্ষণশীল এজেন্ডাগুলো নিয়ে রাজনীতিতে আলাদা দল গঠন করলে তাকে রিপাবলিকান দলের কিছু নেতাকেও দলে নিতে হবে। 

রিপাবলিকান দলের অন্যতম শীর্ষ নেতা ও সিনেটে দলের নেতা মিচ ম্যাককনেল বলেছেন, গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে সহিংসতার জন্য ট্রাম্পকে দুষছেন অনেকে। রিপাবলিকান দলের অনেক নেতা ট্রাম্পকে তাদের জন্য বোঝা মনে করছেন। 


এদিকে ২০২৪ সালে প্রেসিডেন্ট পদে লড়ার ঘোষণা দিয়েছেন ট্রাম্প। এমন হলে রিপাবলিকান পার্টির ভবিষ্যৎ সম্ভাব্য প্রার্থীদের জন্য তা চিন্তার বিষয়। তবে এখনো পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট পদে ডেমোক্র্যাট এবং রিপাবলিকানদের বাইরে তৃতীয় কোনো শক্তিশালী পক্ষের দেখা পাওয়া যায়নি।

তবে ট্রাম্পের এই প্রচেষ্টা রিপাবলিকানদের শক্তিকে ক্ষুণ্ন করবে, এমন শঙ্কার কারণেই দলটির শীর্ষ পর্যায় থেকে বিষয়টির বিরোধিতা করা হয়েছে। হোয়াইট হাউস ছাড়ার পর ট্রাম্পের ভবিষ্যৎ নিয়েও ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে।

সূত্র: ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল, রয়টার্স।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা