kalerkantho

শুক্রবার । ২০ ফাল্গুন ১৪২৭। ৫ মার্চ ২০২১। ২০ রজব ১৪৪২

টিকা প্রয়োগের প্রথম দিনেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেন মমতা

অনিতা চৌধুরী, কলকাতা প্রতিনিধি   

১৭ জানুয়ারি, ২০২১ ০৪:৪০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



টিকা প্রয়োগের প্রথম দিনেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেন মমতা

পশ্চিমবঙ্গে প্রয়োজনের তুলনায় কম করোনা ভ্যাকসিন পাঠিয়েছে কেন্দ্র। শনিবার ভারতে নরেন্দ্র মোদির সরকার করোনার টিকা প্রয়োগের কর্মসূচি শুরুর দিনে অভিযোগ করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শনিবার সকালে অবশ্য এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে করোনা যুদ্ধের প্রথম সারির- অর্থাৎ চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী এবং সাফাই কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেছিলেন মমতা এবং তখনই তিনি এই অভিযোগ করেন। তারপর সব রাজ্যবাসীকে বিনা মূল্যে ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা জানান মুখ্যমন্ত্রী।

‘রাজ্যের সবাইকে বিনা মূল্যে ভ্যাকসিন দেব। প্রয়োজনে ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী সংস্থার কাছ থেকে কিনব।' সেই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, রাজ্যবাসী সবাই বিনা মূল্যে ভ্যাকসিন পাবেন। 

এদিন মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, প্রথম দফায় যদিও প্রায় ৫.৮ লাখ মানুষকে টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা ছিল, সেই সংখ্যার অর্ধেক করা হয়েছে অপর্যাপ্ত ভ্যাকসিন সরবরাহের কারণে।

এক সরকারি সূত্র জানায়, যেহেতু প্রথম দফায় যারা ভ্যাকসিন পাবে, তাদের ২৮ দিন পর দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে, তাই রাজ্য সরকার প্রথম দফায় পাঠানো বন্ধ করে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 

এই মুহূর্তে আমাদের দেশে কভিড শিল্ড এবং কো ভ্যাকসিন নামের দুটি ভ্যাকসিন সরকারি মান্যতা পেয়েছে। প্রথম দফায় আমরা কভিড শিল্ড পেয়েছি, যাদের আমরা প্রথম দফায় কভিড শিল্ড দেব, দ্বিতীয় দফায়ও তাদের কভিড শিল্ডই দিতে হবে। তাই দ্বিতীয় দফার জন্য ভ্যাকসিন মজুদ রাখা হচ্ছে বলে জানান এক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

টিকা প্রয়োগ কর্মসূচির প্রক্রিয়া নিয়ে শনিবার জেলা প্রশাসক ও জেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করেন রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। আলোচনার মাঝেই মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথা বলেন মুখ্যসচিব। সেই সময়ই প্রয়োজনীয় টিকার বন্দোবস্ত ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে আশ্বস্ত করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন সরকারি কর্মকর্তা, স্বাস্থ্যকর্মী ও পুলিশ সদস্যদের কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, ‘অনেকেই মারা গেছে। কিন্তু আপনারা খুব ভালো কাজ করেছে, কভিডের মোকাবেলা করেছেন।’ মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাস, ‘ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। রাজ্য সরকার সবার জন্য ভ্যাকসিন কেনার ব্যবস্থা করবে।’ যারা ভ্যাকসিন নিচ্ছেন, তাঁদের পর্যবেক্ষণে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়।

এদিন ভারতে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে গণটিকা প্রয়োগ কর্মসূচি। পশ্চিমবঙ্গে আজ ২০ হাজার ৭০০ জন প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাকে টিকা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অনেক জায়গায় টিকা নিয়ে মানুষের মনে  শঙ্কা থাকার কারণে অনেক মানুষ টিকা নিতে আসেনি।

'সন্ধ্যা অবধি যা খবর, আমাদের প্রায় ৬০ শতাংশ মানুষকে আমরা টিকা দিতে পারছি।' জানায় এক সরকারি সূত্র।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা