kalerkantho

শনিবার। ২ মাঘ ১৪২৭। ১৬ জানুয়ারি ২০২১। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ওআইসির বৈঠকে জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে প্রস্তাব, ভারতের নিন্দা

অনলাইন ডেস্ক   

১ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৬:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ওআইসির বৈঠকে জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে প্রস্তাব, ভারতের নিন্দা

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নাইজারে ৫৭টি মুসলিম দেশের জোট ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের দুদিনের এক বৈঠকে শনিবার সর্বসম্মতভাবে একটি প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে, যাতে ভারতের সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলকে বেশ শক্ত ভাষায় নিন্দা করা হয়েছে। ওআইসিতে ‘অযৌক্তিক‘ প্রস্তাব গৃহীত হওয়ায় ভারত সরকার তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। ওআইসির প্রস্তাব নিয়ে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে যে বিবৃতি জারি করা হয়েছে তার ভাষা খুবই শক্ত।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, জম্মু-কাশ্মীরসহ ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে ‘হস্তক্ষেপের অধিকার’ নেই ওআইসির। বিবৃতিতে বলা হয়, ওআইসির ৪৭তম সিএফএম অধিবেশনে অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কনফারেন্সের গৃহীত রেজল্যুশনে ভুল, ভিত্তিহীন ও অযৌক্তিক দাবিগুলোকে দৃঢ়ভাবে এবং স্পষ্টভাবে প্রত্যাখ্যান করছি।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, কেন্দ্র শাসিত জম্মু ও কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অংশ এবং আমরা সব সময় বলেছি, ভারতের যেকোনো অভ্যন্তরীণ ইস্যু নিয়ে কথা বলার কোনো এখতিয়ার ওআইসির নেই। ভারত সরকারের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ওআইসির প্রস্তাবে ভারতকে নিয়ে যেসব কথা বলা হয়েছে তা তথ্যগতভাবে ভুল এবং অনভিপ্রেত। ফলে ওই সব বক্তব্য ভারত ‘পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করছে।’

পাকিস্তানকে পরোক্ষভাবে আক্রমণ করে বিবৃতিতে বলা হয়, এটি দুঃখজনক যে নিজেকে (ওআইসি) একটি নির্দিষ্ট দেশেকে ব্যবহার করতে দেয় সংস্থাটি। যার ধর্মীয় সহিষ্ণুতা, উগ্রবাদ এবং সংখ্যালঘুদের ওপর অত্যাচারের একটি খারাপ রেকর্ড রয়েছে। ভবিষ্যতে এজাতীয় প্রস্তাব গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকতে ওআইসিকে আমরা দৃঢ়ভাবে পরামর্শ দিচ্ছি।

সূত্র : এএনআই, জি ফাইভ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা