kalerkantho

রবিবার । ১০ মাঘ ১৪২৭। ২৪ জানুয়ারি ২০২১। ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

অমিত শাহর শর্ত পছন্দ হয়নি চাষিদের, দিল্লি অবরুদ্ধের হুঁশিয়ারি

অনলাইন ডেস্ক   

৩০ নভেম্বর, ২০২০ ০৮:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অমিত শাহর শর্ত পছন্দ হয়নি চাষিদের, দিল্লি অবরুদ্ধের হুঁশিয়ারি

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর দেওয়া ‘শর্ত’ খারিজ করে কৃষকরা নিজেদের অবস্থানে অনড় থাকার বার্তা দিয়েছেন। পাঞ্জাবসহ ভারতের বিভিন্ন অংশ থেকে আসা কৃষকরা দিল্লিতে প্রবেশের জাতীয় সড়ক অবরোধ করায় গত শনিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ প্রস্তাব দিয়েছিলেন, ৩ ডিসেম্বর সরকারের সঙ্গে চাষিদের আলোচনা নির্ধারিত রয়েছে। 

তিনি এ-ও বলেছিলেন, চাষিরা সরকারের ঠিক করে দেওয়া ময়দানে সরে গেলেই আলোচনা হতে পারে।

গতকাল রবিবার সরকারের এই প্রস্তাব খারিজ করে দিয়ে কৃষক সংগঠনের নেতারা জানান, তাঁরা সরকারের মর্জিমাফিক বুরারি ময়দানে সরছেন না। কারণ সেটা আসলে খোলা জেলখানা। 

তার বদলে দিল্লিতে প্রবেশের পাঁচটি রাস্তায় অবরোধ করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন কৃষকরা। কৃষক নেতাদের দাবি, তাদের কাছে চার মাসের প্রস্তুতি রয়েছে। নরেন্দ্র মোদি সরকারের তিনটি কৃষি আইন প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত তাঁরা আন্দোলন থেকে পেছনে সরে আসবেন না। 

এরই মধ্যে জেপি তথা মোদি সরকারের অস্বস্তি বাড়িয়ে হরিয়ানার প্রভাবশালী খাপ পঞ্চায়েতগুলো ‘সব রকমভাবে’ কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করেছে। 

খাপের সদস্যরা আজ সোমবার দিল্লির অভিমুখে যাত্রা করবে বলে জানিয়েছেন দাদরির বিজেপি সমর্থিত নির্দল বিধায়ক সোমবীর সাঙ্গোয়ান। মোদি সরকারকে কৃষি আইন পুনর্বিবেচনার অনুরোধও জানিয়েছেন তাঁরা।

অমিত শাহর প্রস্তাব নিয়ে কৃষক সংগঠনগুলোর আলোচনার পর পাঞ্জাবের ভারত কিষান ইউনিয়নের (ক্রান্তিকারী) সভাপতি সুরজিৎ সিংহ ফুল বলেন, সরকার যেভাবে আলোচনার জন্য শর্ত রেখেছে, তাকে আমরা কৃষক সংগঠনের অপমান বলে মনে করি। 

তিনি আরো বলেন, আমরা কোনোভাবেই বুরারি ময়দানে যাব না। ওটা আসলে মুক্ত জেলখানা। প্রধান পাঁচটি সড়ক অবরোধ করে দিল্লি ঘেরাও করব। কোনো রাজনৈতিক দলের নেতাকে কৃষকদের মঞ্চে আসার অনুমতি দেওয়া হবে না বলেও তিনি জানান।  

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা