kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৩ ডিসেম্বর ২০২০। ১৭ রবিউস সানি ১৪৪২

মার্কিনিদের আটকে রেখে বিচারের হুমকি চীনের

অনলাইন ডেস্ক   

২৪ অক্টোবর, ২০২০ ১২:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মার্কিনিদের আটকে রেখে বিচারের হুমকি চীনের

ওয়াশিংটনকে সতর্ক করে দিয়ে চীন সরকার বলেছে, মার্কিন নাগরিকদের আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আটকে রেখে বিচার করা হতে পারে। চীনের নাগরিকদের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ যে ব্যবস্থা নিয়েছে, তার পাল্টা হিসেবে এ ধরনের পদক্ষেপ নেওয়ার হুমকি দিল চীন। ওয়াল স্ট্রীট জার্নালের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, বিভিন্ন মাধ্যমে মার্কিন কর্মকর্তাদের এ ব্যাপারে বারবার সতর্ক করেছে চীন। মার্কিন আদালতে চীনের শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে বিচার প্রক্রিয়া বন্ধ করার ব্যাপারে এটা চীনের বার্তা। এর অন্যথা হলে চীনে অবস্থানকারী মার্কিনিদের বিরুদ্ধেও আইনভঙ্গের অভিযোগ উঠবে।

চলতি বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে চীন ভ্রমণের ব্যাপারে সতর্ক করা হয়। মার্কিন প্রশাসন সাফ জানিয়ে দেয়, যুক্তরাষ্ট্র ও অন্য দেশের নাগরিকদের বিনা বিচারে আটকে রেখে এবং নিজ দেশে ফিরতে না দিয়ে সেসব দেশের সরকারের সঙ্গে দর কষাকষি এবং অন্য ফায়দা তোলার চেষ্টায় আছে চীন।

হোয়াইট হাউস থেকে জানোনা হয়, চীন সরকার তাদের উচ্চস্তরের উদ্বেগের কারণ। মার্কিন নাগরিকসহ অন্য দেশের নাগরিকদের নিজ নিজ দেশে ফিরতে না দেওয়ার ব্যাপারে এ উদ্বেগ জানানো হয়। যদিও ওয়াশিংটনে নিযুক্ত চীনা দূতাবাস এ ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি।

এদিকে ট্রাম্প প্রশাসন বরাবরই চীনের বিরুদ্ধে সাইবার অপরাধ ও গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ করে আসছে। চলতি বছরের জুলাইয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ বলেছে, চীনের তিন নাগরিককে আটক করেছে তদন্ত সংস্থা এফবিআই। 

আরো জানানো হয়, ওই তিনজন চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির সদস্য। তবে তারা সেটি গোপন করেছেন। গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র জানায়, চীনের এক হাজারেরও বেশি নাগরিকের ভিসা প্রত্যাহার করা হয়েছে। চীনা গবেষক ও শিক্ষার্থীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে নিরাপত্তার কথা বলে। 

অন্যদিকে চীনের দাবি, এটা মানবাধিকার লঙ্ঘন। যদিও মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেছেন, চীন থেকে বৈধ উপায়ে আসা শিক্ষার্থী ও গবেষকদের তারা স্বাগত জানাচ্ছেন।

সূত্র : রয়টার্স, ইউএস নিউজ

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা