kalerkantho

বুধবার । ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৫ নভেম্বর ২০২০। ৯ রবিউস সানি ১৪৪২

কোপেনহেগেনের মেয়রের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

ক্ষমা চেয়ে পদত্যাগ করেছেন মেয়র

অনলাইন ডেস্ক   

২০ অক্টোবর, ২০২০ ২১:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোপেনহেগেনের মেয়রের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

ডেনমার্কের কোপেনহেগেনের মেয়র ফ্রাঙ্ক জেনসেনের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছেন বেশ কয়েকজন নারী। এমন অভিযোগ আনার পর মেয়র পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন সোমবার। তিনি ক্ষমা চেয়ে বলেছেন, দেশের অগ্রগতির পথে তিনি বাঁধা হয়ে দাড়াতে চান না। 

সংবাদ সম্মেলনে মেয়র বলেন, আমি রাজনৈতিকভাবে যে কাজগুলো করতে চাই তা এখন আর করা সম্ভব হবে না, সে কারণে আমি পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷ যারা আমার অশালীন আচরণে ক্ষুব্ধ হয়েছেন, সেই নারীদের কাছে আমি ক্ষমা চাইছি। 

৫৯ বছর বয়সী মেয়র ডেনমার্কের সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট পার্টির সহ-নেতার ভূমিকা থেকেও সরে যাচ্ছেন, যে পার্টির লিডার প্রধানমন্ত্রী ফ্রেডেরিকসেন নিজে। জেনসেন ২০১০ সাল থেকে ডেনমার্কের রাজধানীর মেয়র হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে তিনি আইনমন্ত্রী এবং গবেষণাবিষয়ক মন্ত্রী ছিলেন। 

মেয়রের বিরুদ্ধে ২০১২ এবং ২০১৭ সালেও দু'জন নারী যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছিলেন, তাদের একজন ছিলেন সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট দলের। রবিবার দলের যুব শাখার প্রধান জিল্যান্ড পস্টেন সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, মেয়র ফ্রাঙ্ক জেনসেনের দ্বারা কমপক্ষে আটজন নারী যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন। এ প্রসঙ্গে ‘মি-টু’ এর কথা উল্লেখ করা যায়। 

জেনসেনই ডেনমার্কের প্রথম রাজনীতিবিদ নন, যিনি অসাদাচরণের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছেন। সোশ্যাল লিবারেল পার্টির প্রধান মর্টেন ওস্টারগার্ড তাঁর এক নারী সহকর্মীর শরীর স্পর্শ করার অভিযোগে পদত্যাগ করেছেন এই মাসের শুরুতে। 

কর্মক্ষেত্রে ক্ষমতার অপব্যবহার এবং যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ডেনমার্কে কয়েক হাজার নারী। তারা নারী তাদের তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা সম্প্রতি তুলে ধরেছেন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ফ্রেডেরিকসেন নারীদের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে নিয়েছেন এবং পরিস্থিতির পরিবর্তন আনার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন তিনি। 

সূত্র: ডয়েচে ভেলে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা