kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বাবরি মামলার রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে যাবে মুসলিম সংগঠন

অনলাইন ডেস্ক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাবরি মামলার রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে যাবে মুসলিম সংগঠন

১৯৯২ সালে ৬ ডিসেম্বর এভাবেই ধ্বংস করা হয় ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ, ফাইল ছবি।

বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় বেকসুর খালাস পেয়েছেন বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা এল কে আদভানিসহ ৩২ অভিযুক্তের সকলেই। প্রমাণের অভাবেই তাদের নির্দোষ সাব্যস্ত করেছেন লখনউয়ের বিশেষ সিবিআই আদালতের বিচারক। তবে এই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল' বোর্ড।

হাইকোর্টে যাওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে বোর্ডের সদস্য বিশিষ্ট আইনজীবী জাফারইয়াব জিলানি বলেছেন, প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন কীভাবে অভিযুক্তরা মঞ্চ থেকে উস্কানিমূলক ভাষণ দিচ্ছিলেন বাবরি মসজিদ ধ্বংসের দিন। বিশেষ সিবিআই আদালত তথ্য প্রমাণকে উপেক্ষা করে রায় দিয়েছেন। এই রায়ের বিরুদ্ধে মুসলমানরা আপিল করবে। মুসলিম ল বোর্ডও আপিল করতে পারে বলে তিনি ইঙ্গিত দেন।

জিলানি বলেন, বিভিন্ন ধারায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রমাণ থাকা সত্ত্বেও তাদের ছেড়ে দেওয়া হল। বাবরি মসজিদ ধ্বংস হওয়ায় যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ও যারা প্রত্যক্ষদর্শী ছিলেন, দুই তরফের মুসলমানরাই আপিলে যাবেন। প্রয়োজনে মুসলিম পার্সোনাল ল' বোর্ড এই মামলায় পার্টি হবে বলে জানান তিনি।

রায়ের পরই আদভানী-জোশীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিজেপি সভাপতি জে পি নড্ডা। বর্ষীয়ান বিজেপি নেতাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন আরো অনেকেই। রায়কে স্বাগত জানানোর পাশাপাশি উচ্ছ্বসিত বিজেপি শিবির।

অন্যদিকে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এই রায়ের সমালোচনা করে বলা হয়েছে, এটা রামজন্মভূমি মামলায় সুপ্রিম কোর্ট যা বলেছে তার পরিপন্থী ও সংবিধানের বিচারের বিরোধী।

উল্লেখ্য, ১৯৯২ সালে ৬ ডিসেম্বর উন্মত্ত রামভক্তদের হাতে অযোধ্যার শতাব্দীপ্রাচীন বাবরি মসজিদ ধ্বংস হয়। এই ঘটনায় ৪৯ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা হয়। সেখান থেকে ৩২ জনকে অভিযুক্ত করেছিলেন আদালত। এর মধ্যে ১৭ জন মারা গেছেন। প্রায় ২৮ বছর পর আজ সেই মামলার রায় হলো।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা