kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

জাতিসংঘে দাবি ভারতের

সংখ্যালঘুদের 'কিলিং ফিল্ড' পাকিস্তান

অনলাইন ডেস্ক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:২৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সংখ্যালঘুদের 'কিলিং ফিল্ড' পাকিস্তান

প্রতীকী ছবি।

পাকিস্তান সংখ্যালঘুদের 'কিলিং ফিল্ডে' পরিণত হয়েছে বলে জাতিসংঘে অভিযোগ করেছে ভারত। সাধারণ পরিষদের ৭৫তম অধিবেশনে পাকিস্তানকে তীব্র আক্রমণ করে ভারতীয় প্রতিনিধি বলেন,পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীর এবং লাদাখে মানবাধিকার কার্যত নেই বললেই চলে। ওই এলাকাকে পাকিস্তান ব্যবহার করে জঙ্গি প্রশিক্ষণের জন্য।'

কয়েক দিন আগেই জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে কাশ্মীর নিয়ে ভারতের তীব্র সমালোচনা করেছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এ বার সেই জাতিসংঘেই পাকিস্তানকে কড়া ভাষায় পাল্টা জবাব দিল ভারত।

গত বছর আগস্ট মাসে সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করে কাশ্মীরকে ভারতের কেন্দ্রী শাসিত অঞ্চলে পরিণত করার পর থেকেই লাগাতার ভারতের সমালোচনা করে চলেছে পাকিস্তান। জাতিসংঘে চীনও সমর্থন করেছে পাকিস্তানকে। অন্য দিকে পাকিস্তানের বন্ধু রাষ্ট্র তুরস্কও সম্প্রতি কাশ্মীর প্রসঙ্গে ভারতের সমালোচনা করেছে।

এই পরিস্থিতিতে ভারতও আন্তর্জাতিক মঞ্চে পাকিস্তানকে কোনঠাসা করতে পাল্টা আক্রমণের কৌশল বেছে নিয়েছে। জাতিসংঘে ভারত বলেছে, পাকিস্তানে ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের গুম করে দেওয়া হয়। মেরে ফেলা হয়। কেউ প্রতিবাদ করলে তাকেও ৪০ বছর বা তারও বেশি সময়ের জন্য জেলে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। উদাহরণ হিসেবে সাজাপ্রাপ্ত বাবা জানের কথা বলা হয়েছে।

একই সঙ্গে ভারতের অভিযোগ, পাকিস্তান কাশ্মীর এবং লাদাখের যে এলাকাগুলো 'দখল' করে রেখেছে, সেখানে অর্থনৈতিক উন্নয়ন হয়নি। মানুষ প্রবল দারিদ্র্যের মধ্যে দিন কাটান। এবং সেই সুযোগ ব্যবহার করে সেখানে জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ শিবির তৈরি হয়। পাকিস্তান সরকার তাতে মদত দেয়।

ভারতের দাবি, পাকিস্তান চার হাজার সন্ত্রাসবাদীকে জঙ্গি বলতে রাজি নয়। আন্তর্জাতিক মঞ্চে তাদের যাতে জঙ্গি বলা না হয়, তার চেষ্টা চালায়। এ থেকেই বোঝা যায়, পাকিস্তান কী ভাবে সন্ত্রাসবাদকে মদত দেয়। পাকিস্তান ভারতের সীমান্ত অশান্ত রাখার জন্যই জঙ্গিবাদকে মদত দিচ্ছে।

সংখ্যালঘু নির্যাতনের প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে ভারত পাকিস্তানের আহমেদিয়া সম্প্রদায়ের উপর নির্যাতনের কথা তুলে ধরেছে। বলা হয়েছে খ্রিস্টানদের অবস্থার কথাও।

সূত্র : ডয়েচে ভেলে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা