kalerkantho

শনিবার । ৮ কার্তিক ১৪২৭। ২৪ অক্টোবর ২০২০। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আমিরাতের মানবসম্পদ মন্ত্রীর সঙ্গে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ

আমিরাত প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০৯:১৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমিরাতের মানবসম্পদ মন্ত্রীর সঙ্গে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ

সংযুক্ত আরব আমিরাতের মানবসম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী  নাসের বিন থানি আল হামেলি বলেছেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাংলাদেশের সম্পর্ক ঐতিহাসিক, কৌশলগত এবং গভীর। যার অন্যতম ভিত্তি হলাে মানবসম্পদ খাতে পারস্পরিক সহযােগিতা; যা দুটি দেশের স্বাধীন আত্মপ্রকাশের আগে থেকেই বিদ্যমান ছিল এবং তা ক্রমাগত সম্প্রসারিত হয়েছে।

বর্তমানে সংযুক্ত আমিরাতে বাংলাদেশি শ্রমিকদের ভিসা পরিবর্তনসহ বেশ কিছু সেক্টরে তাদের কাজের সুযােগ রয়েছে। 

গতকাল সোমবার সকালে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রীর আবুধাবির দপ্তরে আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মােহাম্মদ আবু জাফরের সঙ্গে অনুষ্ঠিত সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তিনি এ মন্তব্য করেন। 

অত্যন্ত হৃদ্যতাপূর্ণ বৈঠকে তারা দ্বিপাক্ষীয় সম্পর্কের বিভিন্ন দিক, বিশেষ করে মানবসম্পদ খাতে অধিকতর সহযােগিতার বিষয়ে মতবিনিময় করেন। দুই দেশের ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্কের ভিত্তি রচনায় বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং আরব আমিরাতের জাতির পিতা শেখ জায়েদ বিন সুলতান আল নাহিয়ানের অবদান তাঁরা গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। 

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিয়ােগ সংক্রান্ত যৌথ কমিটির সভা ঢাকায় অনুষ্ঠানের ব্যাপারে আরব আমিরাতের মন্ত্রী তাদের সম্মতির কথা ব্যক্ত করেন এবং ওই সভায় বাংলাদেশ থেকে কর্মী নিয়ােগের পাশাপাশি আরব আমিরাতের সহযােগিতায় বাংলাদেশি শ্রমিকদের সংযুক্ত আরব আমিরাতের জন্য প্রযােজ্য প্রশিক্ষণের বিষয়েও আলােচনা হবে বলে জানান। সে দেশে কর্মরত বাংলাদেশিদের প্রতি আমিরাত সরকার ও জনগণের সহায়তার জন্য রাষ্ট্রদূত জাফর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং আগামী দিনে জনশক্তি খাতে সহযােগিতা আরাে সম্প্রসারণের লক্ষ্যে কাজ করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন।

তিনি আরব আমিরাতের খাদ্যনিরাপত্তা সহযােগিতার আওতায় কৃষি ও সর্বোচ্চ নিয়ােগকারী খাত এসএমই খাতে অধিকসংখ্যক বাংলাদেশি কর্মী নিয়ােগের জন্য আমিরাত সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

আমিরাতে কর্মরত বাংলাদেশিদের কল্যাণ সংক্রান্ত বিষয়াদি নিয়ে বৈঠকে আলােচনা হয়। রাষ্ট্রদূতের নিমন্ত্রণে মন্ত্রী নিকট ভবিষ্যতে বাংলাদেশ সফরের অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন।এই সৌজন্য সাক্ষাৎকালে বাংলাদেশ দূতাবাসের উপপ্রধান ও কাউন্সিলর (শ্রম) উপস্থিত ছিলেন। অপর দিকে ইউএইর পক্ষে অ্যাসিস্ট্যান্ট আন্ডার সেক্রেটারি ওমর আল নােয়াইমি এবং ডিরেক্টর আব্দুল্লাহ আল শামসি বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা