kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ কার্তিক ১৪২৭। ২০ অক্টোবর ২০২০। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

চীনা পণ্য বর্জনের ডাকে শামিল জম্মু-কাশ্মীরের অধিবাসীরাও

অনলাইন ডেস্ক   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৫:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চীনা পণ্য বর্জনের ডাকে শামিল জম্মু-কাশ্মীরের অধিবাসীরাও

ছবি: ‘বয়কট চীন’ মাস্ক পরে প্লেকার্ড হাতে প্রতিবাদ কর্মসূচিতে কাশ্মীরের শিশুরা।

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ভারত ও চীনের সেনাদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘাতের জেরে ভারতে চলমান চীনা পণ্য বর্জনের ডাকে শামিল হয়েছে জম্মু ও কাশ্মীর। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আত্মনির্ভর ভারত অভিযানের ডাকে সাড়া দিয়ে চীনা পণ্য বর্জন শুরু করেছে জম্মু ও কাশ্মীরের জনগণ।

জম্মু ও কাশ্মীরের লোকজন রাস্তায় নেমে এসে ভারতে উৎপাদিত পণ্য ব্যবহারের স্লোগান দিয়ে চীনা পণ্য বর্জনের আওয়াজ তুলেছেন। ‘ভারতীয় পণ্য ব্যবহার করুন’, ‘চীনকে বয়কট করুন’, ‘চলুন আমাদের দেশকে তৈরি করি’ লেখা ব্যানার নিয়ে প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নেন জম্মু ও কাশ্মীরের অধিবাসীরা।

কাশ্মীর উপত্যকায় চীনের সম্প্রসারণবাদী নীতির প্রতিবাদ জানিয়ে তারা ‘বয়কট চীন’ মাস্ক পরে প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন। প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে জম্মু ও কাশ্মীরের শিশুরাও। ভারতীয় জাতীয়তাবাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে ‘চীনা পণ্য বয়কট করো’ স্লোগান দিচ্ছেন তাঁরা। 

ভারতের সাত কোটি ব্যবসায়ীর প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন কনফেডারেশন অব অল ইন্ডিয়া ট্রেডার্স (সিএআইটি) সম্প্রতি সীমান্তে সংঘর্ষের প্রতিবাদে চীনা পণ্য বর্জন করার আহ্বান জানায়। সংগঠনটি ‘ভারতীয় পণ্য আমাদের অহংকার’ স্লোগান দিয়ে একটি প্রচারণা কর্মসূচি চালিয়েছে।

গার্মেন্ট ও টেক্সটাইল পণ্য, নির্মাণসামগ্রী, জুতা, খেলনাসহ চীনের ৫০০টি পণ্য ভারতবাসীকে বর্জনের আহ্বান জানিয়েছে সিএআইটি।

জম্মুর স্থানীয় ব্যবসায়ী প্রীতম সিংহ বলেন, চীন সব সময় আমাদের সঙ্গে প্রতারণা করেছে এবং আমাদের পেছনে ফেলে রেখেছে। আমাদের সরকারের দিকনির্দেশনা অনুসারে চীনা অ্যাপ ও অন্যান্য পণ্য বর্জন করতে হবে। আমাদের উচিত ভারতে উৎপাদিত পণ্য কেনা।

সূত্র : এএনআই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা