kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১১ সফর ১৪৪২

আগ্রাসনের যোগ্য জবাব দিতে জানি, চীনকে হুঁশিয়ারি ভারতের রাষ্ট্রপতির

অনলাইন ডেস্ক   

১৪ আগস্ট, ২০২০ ২১:৫০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আগ্রাসনের যোগ্য জবাব দিতে জানি, চীনকে হুঁশিয়ারি ভারতের রাষ্ট্রপতির

ফাইল ছবি।

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় সেনা সংঘর্ষ নিয়ে এবার মুখ খুললেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। ৭৪তম স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে শুক্রবার জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে চীনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বললেন, 'গালওয়ানে ভারতের সেনা জওয়ানরা সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে। দেশের নিরাপত্তার জন্য আত্মবলিদান দিয়েছে। তাঁদের আত্মবলিদানকে সম্মান জানাই। ভারত শান্তিতে বিশ্বাসী। কিন্তু কেউ যদি আগ্রাসী নীতি নেয়, তাহলে সেই আগ্রাসনবাদীদের যোগ্য জবাব দিতেও জানে।'

করোনা প্রকোপের কারণে এ বছর অনেকটা অনাড়ম্বরভাবেই পালিত হবে ভারতের স্বাধীনতা দিবস। কার্যত ‘ঘরবন্দি’ হয়েই স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করতে হচ্ছে ভারতবাসীকে। সংক্রমণ রুখতে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের ওপর বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে।

ভাষণে সেই প্রসঙ্গ উত্থাপন করে রাষ্ট্রপতি বলেন, 'এবারের স্বাধীনতা দিবস তেমন জাঁকজমকের সঙ্গে উদযাপিত হবে না। তবু আজ আমাদের করোনাযোদ্ধাদের কথা ভাবতে হবে। চিকিৎসক, নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীরা নিজেদের উজাড় করে দিয়ে পরিষেবা দিয়ে চলেছেন। দুর্ভাগ্যের বিষয়, তাঁদের অনেকেই এই রোগের কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন। আজ তাঁদের কথা ভুলে গেলে চলবে না। তাঁদের পাশে দাঁড়াতে হবে।'

করোনা মোকাবেলায় কেন্দ্রীয় সরকারের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘করোনার মতো মহামারি মোকাবেলায় কেন্দ্রীয় সরকার সঠিক পদক্ষেপ নিয়েছে। রাজ্য সরকার ও জনসাধারণের সহযোগিতায় পরিস্থিতির মোকাবেলা করছি আমরা। বিনা মূল্যে প্রতি মাসে প্রায় ৮০ কোটি মানুষ রেশন পাচ্ছেন। এর জন্য এক দেশ এক রেশন কার্ড প্রকল্প শুরু করা হয়েছে।’

করোনা মোকাবেলায় বিশ্বের বিভিন্ন উন্নয়নশীলের পাশে দাঁড়ানোর প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, 'করোনা মোকাবেলায় আমরা অনেক দেশের পাশে দাঁড়িয়েছি। আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারত থাকবে এবং নিজের পরিচয় বজায় রাখবে। আমরা শুধু নিজেদের কথা ভাবি না, আমরা সকলের পাশে দাঁড়াই।'

উল্লেখ্য, ভারতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলেছে ৷ গত কয়েক দিনে প্রতিদিন কমপক্ষে ৫০ হাজারের বেশি আক্রান্ত হচ্ছে, যা যথেষ্ট চিন্তার কারণ৷ করোনা সংক্রমণে বিশ্বে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে এরই মধ্যে ২৫ লাখের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৪৯ হাজার মানুষের।

সূত্র : ইকোনমিক টাইমস।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা