kalerkantho

শুক্রবার । ১০ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৭ সফর ১৪৪২

করোনা রোগীর মরদেহ খুবলে খেল কুকুর!

অনলাইন ডেস্ক   

১৩ আগস্ট, ২০২০ ১০:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনা রোগীর মরদেহ খুবলে খেল কুকুর!

প্রতীকী ছবি

ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের সরকারি হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর মরদেহ খুবলে খেল কুকুরে! ওই রোগীকে দিন কয়েক আগে হাসপাতালে চিকিত্‍‌সার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।

ঘটনা জেনে স্বাভাবিকভাবেই ক্ষুব্ধ মৃতের পরিবার। তার আত্মীয়েরা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে চরম গাফিলতির অভিযোগ করেছেন। এ ঘটনায় দ্রুত তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

তবে প্রশ্নটা উঠছে, হাসপাতাল চত্বরের মধ্যে করোনা রোগীর মরদেহ এভাবে পড়ে থাকছে কেন? কর্তৃপক্ষ কিভাবে এতটা উদাসীন হতে পারে?

ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের ওঙ্গোলের সরকারি হাসপাতালে ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার। যদিও গতকাল বুধবার তা সামনে আসে। অভিযোগ রয়েছে, রাজীব গান্ধী ইন্সটিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেসের বিরুদ্ধে। ওই হাসপাতাল চত্বরের একটি জায়গায় রাতের বেলা আশ্রয় নেন ভবঘুরে লোকজন। সেখানেই পড়েছিল করোনা রোগীর মরদেহ।

গত সোমবার হাসপাতালের একজন প্রহরী প্রথম খেয়াল করেন। তার নজরে পড়ে পথ কুকুর এক ব্যক্তির মরদেহ নিয়ে খাবলা-খাবলি করছে। তিনি লাঠিহাতে তাড়া করে কুকুরগুলোকে সরিয়ে দেন। ততক্ষণে অবশ্য মুত ব্যক্তির কানের একাংশ ছিঁড়ে নিয়েছে কুকুরে। মুখের একাধিক অংশে খাবলা মেরে বিকৃত করে দিয়েছে কুকুররা।

খোঁজ নিয়ে প্রহরী জানতে পারেন, ওই ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত ছিলেন। নাম কান্তা রাও। বাড়ি প্রকাশম জেলার বিত্রগুন্তা গ্রামে। ঘটনার অনেকক্ষণ আগেই তিনি মারা গেছেন। 

এ ঘটনা সামনে আসার পর মৃতের পরিবারের লোকজন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পড়েন। কিন্তু, হাসপাতাল অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্তও করে। তবে প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, কান্তা রাওকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়নি।

মৃতের পরিবারের দাবি উড়িয়ে আরআইএমএস সুপার ডাক্তার শ্রীরামুলু জানান, ৫ আগস্ট আনা হয়েছিল কান্তা রাওকে। কিন্তু, হাসপাতালে রোগী হিসেবে তাকে নথিভুক্ত করা হয়নি। 

তবে হাসপাতাল কেন কান্তা রাওকে ভর্তি নেয়নি, কেন করোনা আক্রান্ত একজনকে পাঁচ দিন বিনা চিকিত্‍‌সায় শেডের মধ্যে কাটাতে হলো, তার সদুত্তর সুপার দিতে পারেননি। সুপারের বক্তব্য, তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা