kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১১ সফর ১৪৪২

একশ হেরন ড্রোন-মিসাইল পাচ্ছে ভারতের প্রতিরক্ষা বাহিনী

অনলাইন ডেস্ক   

১০ আগস্ট, ২০২০ ১১:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



একশ হেরন ড্রোন-মিসাইল পাচ্ছে ভারতের প্রতিরক্ষা বাহিনী

সীমান্ত নিয়ে কোন্দলে কোনোভাবেই পেছনে সরানো যাচ্ছে না চীনকে। এ জন্য শত্রুদের মোকাবেলায় নিজেদের ক্ষমতা বাড়াতে ১০০টি মিসাইলসহ হেরন ড্রোন বাড়াতে যাচ্ছে ভারতের প্রতিরক্ষা বাহিনী।

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ১০০টি হেরন ড্রোন কেনার প্রস্তাব নিয়ে তৈরি হচ্ছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। এবার অপেক্ষা অনুমোদনের। আকাশপথে শত্রুপক্ষকে আরো ধাক্কা দিতে অস্ত্রসম্ভার বাড়িয়ে শক্তি সঞ্চয়ের কাজ চলছে।

ড্রোনগুলো লেসার বম্ব দিয়ে সাজানো থাকবে। অনেক দূর পর্যন্ত উড়তে সক্ষম এয়ার টু গ্রাউন্ড মিসাইল এবং অ্যান্টি-ট্যাংক গাইডেড মিসাইল, ভারতীয় সেনাবাহিনী পাচ্ছে স্পাইক অ্যান্টি ট্যাংক গাইডেড মিসাইল।

অনেক বছর ধরেই ঝুলে আছে এই প্রস্তাব। তবে সাম্প্রতিক সময়ে ভারতের ওপর ক্রমাগত আক্রমণ বেড়েছে অনেক দেশের। ফলে ভারত প্রতিরক্ষাক্ষেত্র আরো শক্তিশালী করবে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

আপাতত লাদাখে হেরন ড্রোন দিয়ে নজরদারি চালাচ্ছে ভারতের বিমানবাহিনী। তবে আরো ড্রোন প্রয়োজন বলে জানানো হয়েছে। কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, হেরন ইউএভি কেনার অনুমতি পাওয়া গেছে।
 
১০ কিলোমিটার ওপর দিয়ে ওড়ার ক্ষমতাসম্পন্ন হেরন ড্রোন টানা দুদিনের বেশি সময় ধরে উড়তে পারে। যেকোনো প্রতিকূল পরিস্থিতিতেও কাজ করার ক্ষমতা রয়েছে হেরনের।

ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রজেক্ট চিতার আওতায় এই ড্রোন নিয়ে আসা হবে বলে জানানো হয়েছে। অন্যদিকে ভারতীয় সেনাবাহিনী স্পাইক অ্যান্টি ট্যাংক মিসাইল কেনার অর্ডার দিতে যাচ্ছে ইসরায়েলকে। এর আগে ভারতীয় সেনাবাহিনী ১২টি লঞ্চার ও ২০০টি স্পাইক মিসাইল হাতে পেয়েছে।

জানা গেছে, ড্রোনের ঘাঁটি তৈরি করতে চীন সীমান্তে ৬০ একর জমি নিচ্ছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। কুমায়নের পান্তনগরে নেওয়া হচ্ছে সেই জমি। সেখানেই বানানো হবে ঘাঁটি।

এরই মধ্যে ভারতীয় সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী এবং বিমানবাহিনীতে ব্যাপক হারে ব্যবহার করা হচ্ছে শক্তিশালী হেরন। এটির টার্গেট অ্যাকুইজিশন ব্যাটারি যথেষ্ট উন্নত মানের। আপাতত লাদাখ সেক্টরে হেরন ড্রোন দিয়েই নজরদারি চালানো হচ্ছে।

সূত্র : ইন্ডিয়া টুডে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা