kalerkantho

শুক্রবার । ৩ আশ্বিন ১৪২৭। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০। ২৯ মহররম ১৪৪২

‘আমাকে নাকি কবর দেওয়া হয়ে গেছে’

অনলাইন ডেস্ক   

৯ আগস্ট, ২০২০ ১৮:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘আমাকে নাকি কবর দেওয়া হয়ে গেছে’

প্রতীকী ছবি।

রবীন্দ্রনাথের কাদম্বিনী মরে প্রমাণ করেছিলেন, তিনি মরেননি। আর এবার ভারতের উত্তরপ্রদেশের এক তরুণকে কবর দেওয়ার দু’দিন পরে ফিরে এসে তিনি প্রমাণ করলেন এখনও জীবিত! প্রদেশটির কানপুরের কর্নেলগঞ্জ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, কর্নেলগঞ্জ এলাকায় বউ নাগমার সঙ্গে ঝগড়া করে ২ আগস্ট ঘর ছেড়েছিলেন আহমেদ হাসান নামের এক তরুণ। দু’দিন ধরে খোঁজ না পেয়ে পুলিশের কাছে নিখোঁজ ডায়রি করেছিলেন নাগমা ও পরিবারের অন্য সদস্যরা। ৫ আগস্ট একটি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তাঁকে হাসান বলে শনাক্ত করেন পরিবারের সদস্যরা। প্রতিবেশীদের সঙ্গে নিয়ে গিয়ে নিকটবর্তী কবরস্থানে তাঁকে কবর দেওয়া হয়। এ পর্যন্ত সব ঠিক ছিল। এরপর ৭ আগস্ট প্রতিবেশীরা দেখেন, রাস্তা দিয়ে হেঁটে আসছেন হাসান। তাঁকে দেখে তো সকলে তাজ্জব বনে যান।

এদিকে, হাসান বাড়ি ফিরে দেখেন দরজায় তালা। প্রতিবেশীদের থেকে গোটা বিষয়টা শুনে তো তাঁরও মাথায় হাত। তড়িঘড়ি পুলিশ স্টেশনে ছোটেন স্বামী-স্ত্রী। হাসান বলেন, ২ তারিখ বউয়ের সঙ্গে ঝগড়া হয়েছিল। রাগের মাথায় বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিলাম। সেই সময় এক ভদ্রলোক আমাকে কাজের সুযোগ করে করে দেন। সেই কারখানাই কাজ করছিলাম। টাকা পেয়ে বাড়ি ফিরলাম। এসে দেখি এই অবস্থা! আমাকে নাকি কবর দেওয়া হয়ে গেছে।

নাগমার দাবি, পুলিশ দেহটা নিয়ে এসেছিল। প্রথমে মুখ দেখে বুঝতে পারিনি। পরে ওঁর ভাই শনাক্ত করল। তাই কবর দিয়েছিলাম। 

পুরো বিষয়টা নিয়ে বেশ সমস্যায় পড়েছে কানপুর পুলিশ। এসএসপি প্রীতন্দর সিং বলেন, হাসানের পরিবার কার দেহ কবর দিল, সেটাই খুঁজে দেখতে হবে এবার।

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা