kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৬ আশ্বিন ১৪২৭ । ১ অক্টোবর ২০২০। ১৩ সফর ১৪৪২

যৌন হয়রানির অভিযোগ তুললেন 'ব্রেস্টুরেন্টের' ৩৪ নারী

অনলাইন ডেস্ক   

৮ আগস্ট, ২০২০ ১৪:১০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



যৌন হয়রানির অভিযোগ তুললেন 'ব্রেস্টুরেন্টের' ৩৪ নারী

মার্কিন রেস্টুরেন্ট কম্পানি টুইন পিকসের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন সাবেক ৩৪ জন নারী কর্মী। তারা যৌন হয়রানি, মানসিক চাপ এবং কম বয়সী নারীদের শারীরিকভাবে হেনস্থার অভিযোগ করেছেন 'ব্রেস্টুরেন্ট' কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয়িস এ করা মামলায় বলা হয়, ওই সংস্থার রেস্টুরেন্টগুলোতে বাণিজ্যিকভাবে যৌন পার্টি চলে। টুইন পিকসে বিভিন্ন খাবার খাওয়া যায়, মদ পান করা যায় এবং সেখানে দেখার মতো কিছু আয়োজন থাকে। আর সেখানকার ক্রেতা বা দর্শণার্থীদের কাছে খাবার পরিবেশন করেন স্বল্প বসনা নারীরা।

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন জায়গায় টুইন পিকসের রেস্টুরেন্টে অতীতে কাজ করেছেন এই ৩৪ নারী। তাদের দাবি,  ক্রেতাদের হাতে তাদেরকে হেনস্থা করতে সহায়তা করেছে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। তারা এ ব্যাপারে ম্যানেজারের কাছে কোনো অভিযোগ করলে উল্টো তাদেরই শাস্তি দেওয়া হতো। 

৩৫ পৃষ্ঠার অভিযোগে বলা হয়, প্রতিদিন কাজ শুরুর আগে স্বল্পবসনা হয়ে দাঁড়াতে হতো ম্যানেজারের সামনে। ম্যানেজার সেই ছবি তুলে খদ্দেরদের কাছে পাঠাতো। এমনকি তাদের শরীরের বিভিন্ন অঙ্গের আলাদা আলাদাভাবে পয়েন্ট নির্ধারণ করা আছে। মোট পয়েন্ট ৪০। পয়েন্টের ওপর ভিত্তি করে কর্মীদের আবার বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়।

কেউ একটু মুটিয়ে গেলে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাকে ভর্ৎসনা করে। ওজন কমানোর জন্য চাপও ছিল। সেই সঙ্গে চাকরি দেওয়ার সময়কার ছবি দেখিয়ে কর্মীদের বরখাস্ত করার চাপও সৃষ্টি হয়। বলা হয়, তুমি আগের চেয়ে মুটিয়ে গেছ। ওজন না কমালে এখানে আর চাকরি থাকবে না।

সেখানে কাজ করার জন্য নির্দিষ্ট পোশাক রয়েছে। কাজের পুরো সময় ওই পোশাকের বাইরে আর কিছুই গায়ে জড়ানোর নিয়ম নেই। কর্মীদের অভিযোগ, এতে করে তাদের বিশেষ অঙ্গপ্রত্যঙ্গ অন্যদের কাছে দৃশ্যমান হয়ে যেত।

অভিযোগে উদাহরণ হিসেবে বলা হয়, একবার স্তন ক্যান্সারের ব্যাপারে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য টুইন পিকসে আয়োজন করা হয়। সেখানে আমাদের গোলাপি রঙের অন্তর্বাস পরানো হয়। এমনভাবে আমাদের পোশাক নির্ধারণ করা হয়, যেন আমাদের স্তন দৃশ্যমান হয়ে যায়।

সেখানে কর্মরত অবস্থায় যৌন হয়রানি এবং ক্রেতাদের দ্বারা শরীরের বিভিন্ন জায়গায় উদ্দেশ্যমূলক স্পর্শ করার অভিযোগ করেছেন তারা। এদিকে টুইন পিকস এমনভাবে নিজেদের ইমেজ তৈরি করেছে যে, আমাদের এখানে অল্প বয়সী নারীদের সামান্য কাপড় পরিয়ে খদ্দেরের সামনে পাঠানো হয়। আর এখানে খদ্দেরের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করা যায় না।

অভিযোগকারী নারীদের মধ্যে চারজন কৃষ্ণাঙ্গ। তাদের সঙ্গে বর্ণবাদী আচরণ করার অভিযোগ রয়েছে। টুইন পিকসের কোন রেস্টুরেন্টে কে নির্যাতনের শিকার হয়েছে, সে ব্যাপারে বিস্তারিত উল্লেখ রয়েছে।

সূত্র : ডেইলি মেইল

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা