kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৯ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৬ সফর ১৪৪২

রন জেরেমি গ্রেপ্তারের পর সামনে আসছে ধর্ষণ-নির্যাতনের ভয়াবহ গল্প

অনলাইন ডেস্ক   

৬ আগস্ট, ২০২০ ১৫:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রন জেরেমি গ্রেপ্তারের পর সামনে আসছে ধর্ষণ-নির্যাতনের ভয়াবহ গল্প

পর্নস্টার রন জেরেমির বিরুদ্ধে চারজন নারীকে ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের অভিযোগে লস অ্যাঞ্জেলেস কাউন্টি ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে মামলার পর একে একে সামনে আসছে তার আরো নানা অপরাধের তথ্য। এবার পর্নো তারকা জেরেমির হাতে ধর্ষণ এবং অন্যান্য যৌন নির্যাতনের ভয়াবহ গল্প প্রকাশ করতে একাধিক নারী এগিয়ে এসেছেন।

জুনের শেষ দিকে লস অ্যাঞ্জেলেস ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে জেরেমির বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ করেছিলেন পশ্চিম হলিউডের চার নারী। তদন্তের পর প্রসিকিউটররা জেরেমিকে অভিযুক্ত করেছেন। ২০১৪ সাল থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে রন জেরেমি ওই তিন নারীকে ধর্ষণ এবং চতুর্থ জনকে যৌন নিপীড়ন করেছেন বলে অভিযোগে বলা হয়েছে।  

প্রসিকিউটররা জানিয়েছেন, তার গ্রেপ্তারের কয়েকদিনের মধ্যেই  লস অ্যাঞ্জেলস কাউন্টি শেরিফের বিভাগে ২০০৩ সালের এলএ কাউন্টিতে পর্ন তারকার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ ও গ্রুপ সেক্স করানোর আরো ৩০ টি অভিযোগ পেয়েছিল।

দেশের বিভিন্ন জায়গায় জেরেমির বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতন থেকে ধর্ষণের কয়েক ডজন অভিযোগ করা হয়েছিল। লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমসের একটি নতুন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তারা জেরেমির হাতে ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়া ছয়জনের কথা বলেছেন। যারা দাবি করেছেন যে, জেরেমি খ্যাতি অর্জনের জন্য তাদের ব্যবহার করেছিলেন।

জেরেমিকে গ্রেপ্তারের আগে এসব নারীরা পুলিশের সাথে যোগাযোগ করেননি বা তাদের গল্পগুলো প্রকাশ্যে আনেননি, এই ভয়ে যে তাদের প্রতিশোধের মুখোমুখি হতে হবে বা তাদের কথাগুলো বিশ্বাস হবে না।

৬৭ বছর বয়সী রন জেরেমি নীল দুনিয়ায় পরিচিত নাম। ১৯৭০ সাল থেকে দুই হাজারের বেশি পর্ন ভিডিওতে দেখা গেছে তাকে। দোষী সাব্যস্ত হলে ৯০ বছরের বেশি কারাদণ্ড হতে পারে তার।

রন জেরেমির আসল নাম রোনাল্ড জেরেমি হায়াট। এর আগে ২০১৭ সালে এক ডজনেরও বেশি নারী রন জেরেমির বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ করেন। তার মধ্যে অস্বাভাবিকভাবে স্পর্শ করা, সম্মতি না নিয়ে শারীরিক সম্পর্ক, যৌন নিপীড়নের মতো অভিযোগ ছিল। তবে রন জেরেমি স্পষ্ট করে বলেছেন, তিনি কাউকেই ধর্ষণ করেননি। 

সূত্র : ডেইলি মেইল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা