kalerkantho

সোমবার । ১৩ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১০ সফর ১৪৪২

বৈরুত বিস্ফোরণ

‘বড় ভাইয়ের মৃত্যুতে আমি অভিভাবক হারালাম’

অনলাইন ডেস্ক   

৬ আগস্ট, ২০২০ ০১:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



 ‘বড় ভাইয়ের মৃত্যুতে আমি অভিভাবক হারালাম’

নিহত মিজানুর রহমান

তিন বছর হলো লেবাননে গিয়েছিলেন মিজানুর রহমান (২৭)। লেবাননের রাজধানী বৈরুতে বিস্ফোরণে নিহত তিনজন বাংলাদেশির মধ্যে তিনি একজন।

মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার শিকারমঙ্গল ইউনিয়নের বাসিন্দা মিজানুর রহমান বৈরুতের একটি রেস্তোরাঁয় কাজ করতেন। চার ভাই-বোনের মধ্যে সবার বড় ছিলেন মিজানুর রহমান। টেলিফোনে কথা বলছিলাম তাঁর ছোট ভাই আব্দুর রহমানের সঙ্গে।

তিনি বলেন, 'ঘরে একটাই বড় ভাই। তিনি ছিলেন আমার অভিভাবকের মতো। আমাদের বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করে পরিবার ছেড়ে চলে যাওয়ার পর আর আমাদের খোঁজখবর নিতেন না। বাবা চলে গেলে ঘরে অভিভাবক থাকেন তার বড় ভাই। এখন তিনিও চলে গেলেন। এ অবস্থায় একটি পরিবারের অবস্থা কেমন হয়?'

আব্দুর রহমান জানিয়েছেন, বাবা চলে যাওয়ার পর তাঁদের মা পরিবারের হাল ধরেছিলেন। ঢাকায় কষ্ট করে কাজ করে টাকা জমিয়ে ছেলেকে পাঠিয়েছিলেন বিদেশে।

তিনি বলেন, 'আমার মায়ের দুটি কিডনিই অকেজো হয়ে গেছে। চলতে পারেন না। চোখেও দেখতে পান না। অসুস্থ এই মায়ের জন্য ওষুধ, পরিবারের খরচ, আমার ছোট ভাইয়ের পড়ালেখার খরচ- সব বড় ভাই চালাতেন। তাঁর আড়াই বছর বয়সী মেয়েটার এখন কী হবে?'

বৈরুতে বসবাসরত এক আত্মীয় ফোনে ভাইয়ের মৃত্যুর খবরটি দিয়েছেন। কর্তৃপক্ষের কেউ এখনো তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করেনি। সূত্র : বিবিসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা