kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৯ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৬ সফর ১৪৪২

বহু বছর তাঁবুতে কাটিয়েছেন, এখন থেকে মন্দিরে থাকবেন প্রভু রাম : মোদি

অনলাইন ডেস্ক   

৫ আগস্ট, ২০২০ ১৬:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বহু বছর তাঁবুতে কাটিয়েছেন, এখন থেকে মন্দিরে থাকবেন প্রভু রাম : মোদি

অযোধ্যায় রামমন্দিরের ভূমিপুজো অনুষ্ঠানে এসে 'সিয়াবর রামচন্দ্র কি জয়' ও 'জয় শ্রী রাম' স্লোগান তোলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বাবারি মসজিদের বিতর্কিত স্থানে রামমন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে তিনি বলেন, 'বহুবছর ধরে তাঁবুতে থাকতে হয়েছে রামলালাকে। আজ থেকে উনি এই মহামন্দিরে থাকবেন। রামভক্তদের তৈরি করা এই মন্দিরই রাম জন্মভূমিকে উন্মুক্ত করল।'

মোদি বলেন, 'রাম সবার, রাম সবার মধ্যেই। প্রত্যেক জায়গায় ভিন্ন অবতারে প্রভু রামকে খুঁজে পাওয়া যাবে। প্রত্যেক চরিত্র রামের সঙ্গে সমার্থক। যাকে আমরা এককথায় ভারত বলি।' 

১৯৯০ সালে রামমন্দির আন্দোলনের অন্যতম উদ্যোক্তা ছিলেন নরেন্দ্র মোদি। তিন দশক পর মন্দির নির্মাণের প্রথম ইট পুঁতলেন তিনি। অংশ নিলেন ভূমিপুজোয়। এই আচার শেষ হতেই অনুষ্ঠানস্থলে 'ভারত মাতা কি জয়' আর 'হর হর মহাদেব' স্লোগান ওঠে। বেজে ওঠে শ্লোক আর ভজন।

এদিন অযোধ্যায় নেমে প্রথমে হনুমানগঢ়হি মন্দির পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। দশ মিনিট সেখানে ছিলেন তিনি। সেখান থেকেই সোজা যান রামমন্দিরের ভূমিপুজোর অনুষ্ঠানে।

উপস্থিত ছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, আরএসএস প্রধান-সহ জমি মামলার অন্যতম আবেদনকারী ইকবাল আনসারি। দুই প্রবীণ বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আদভানি ও মুরলি মনোহর জোশি ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে এই পুজো দেখেন। এই অনুষ্ঠানের মূল উদ্যোক্তা রাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্ট।

গত বছর নভেম্বরে বিতর্কিত ২.৭৭ একরের জমির মালিকানা দেওয়া হয় রামমন্দির ট্রাস্টকে। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে এই মামলার নিষ্পত্তি হয়। পঞ্জিকা মেনেই এদিনের অনুষ্ঠান।

সূত্র : এনডিটিভি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা