kalerkantho

বুধবার । ৫ কার্তিক ১৪২৭। ২১ অক্টোবর ২০২০। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

রামভক্ত মুসলিম যুবক! ৮০০ কিমি হাঁটছেন ভূমিপূজোয় যোগ দিতে

অনলাইন ডেস্ক   

২৭ জুলাই, ২০২০ ১৬:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রামভক্ত মুসলিম যুবক! ৮০০ কিমি হাঁটছেন ভূমিপূজোয় যোগ দিতে

অযোধ্যায় বাবরি মসজিদের জমিতে বিতর্কিত রামমন্দির নির্মাণ কাজ শুরু হবে আগস্টের প্রথম সপ্তাহে। ৩ আগস্ট থেকে ৫ আগস্ট হবে ভূমিপূজো উৎসব। সেই ভূমিপূজোয় উপস্থিত থাকতে ৮০০ কিলোমিটার পথ হেঁটে পাড়ি দিচ্ছেন ছত্তিশগড়ের মুসলিম যুবক ফৈয়াজ খান! রামভক্ত এই মুসলিম যুবক ৫ আগস্ট রাম মন্দিরের ভূমি পুজোয় হাজির থাকবেন।

ছত্তিশগড়ের চন্দখুড়ি গ্রামের বাসিন্দা ফৈয়াজ খান। কথিত আছে, এই চন্দখুড়ি গ্রাম নাকি রানি কৌশল্যার জন্মস্থান। তার মাটিও হিন্দুদের কাছে পবিত্র। সেই পবিত্র স্থান থেকে মাটি সংগ্রহ করে ফৈয়াজ রওনা দিয়েছেন অযোধ্যার উদ্দেশে।

দূরত্বের হিসেব ছত্তিশগড়ের চন্দখুড়ি থেকে উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যা ৮০০ কিলোমিটারের একটু কমবেশি। তাতে কী? ছোটবেলা থেকে আরাধ্যা দেবতা রামের মন্দির তৈরি ভারতের ইতিহাসে যে এক বড়সড় তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা। তার সূচনার সাক্ষী থাকবেন না ফৈয়াজ! তাই ভূমিপুজোয় যোগ দিতে হেঁটে চলেছেন তিনি। আপাতত পৌঁছেছেন মধ্যপ্রদেশের অনুপপুরে।

ফৈয়াজ খান বলছেন, 'নাম এবং ধর্ম অনুযায়ী আমি মুসলিম। কিন্তু বরাবর রামচন্দ্রের ভক্ত। আমার পূর্বপুরুষরা হিন্দু ছিলেন। আমি জানি, ভারতের আসল দেবতা রামই। বংশগতভাবে আমরা হিন্দু ধর্মাবলম্বী।'

মুসলিম হয়ে রামের প্রতি ভক্তি প্রকাশের জন্য কোনো সমালোচনার মুখে পড়তে হয়নি কখনো? এই প্রশ্নের উত্তরে ফৈয়াজ হেসেই জবাব দিলেন, 'পাকিস্তানের কেউ কেউ ভুয়া পরিচয়পত্র বানিয়ে হিন্দু অথবা মুসলিম নাম নিয়ে ভারতে ঢুকে পড়ছে। আর তাদের লক্ষ্য, ভারতে বিভিন্ন ধর্মের মানুষের মধ্যে বিভেদ তৈরি করা। পাকিস্তান তো রামমন্দির তৈরি নিয়েও এদেশের মধ্যে সাম্প্রদায়িক অশান্তি করার চেষ্টা করছে।'

এই প্রথম নয়, ভারতের বিভিন্ন হিন্দু মন্দিরে পূজো দেওয়ার জন্য তিনি অন্তত ১৫ হাজার কিলোমিটার পথ হেঁটেছেন বলে জানালেন ফৈয়াজ খান। রাত কাটিয়েছেন বিভিন্ন মঠ, মন্দিরে। নিজের অভিজ্ঞতার কথা শুনিয়ে ফৈয়াজ বলছেন, 'আমাকে কেউ কখনো কোনো কথা শোনায়নি।'

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা