kalerkantho

সোমবার  । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭। ৩ আগস্ট  ২০২০। ১২ জিলহজ ১৪৪১

জাপানে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, ৩ দিনে ৪০ জনের প্রাণহানি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ জুলাই, ২০২০ ১০:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জাপানে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, ৩ দিনে ৪০ জনের প্রাণহানি

 তিন দিন ধরে টানা বৃষ্টির জেরে জাপানে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। সবচেয়ে ভয়াবহ পরিস্থিতি দক্ষিণ জাপানে। সোমবার পর্যন্ত  কমপক্ষে ৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে। আরো ১০ জন নিখোঁজ রয়েছেন।

দক্ষিণ জাপানের কুমামোটা ও কাগোশিমা অঞ্চলে ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়। শনিবার রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টি হয় বেশ কয়েকটি জায়গায়। অন্তত ১১টি জায়গায় নদীর পানি ফুলেফেঁপে উঠেছে। কুমা এলাকায় সবচেয়ে  বেশি মানুষ বন্যার কবলে পড়েছে। এখনো ১৪ জন নিখোঁজ রয়েছেন।

এর মধ্যে নদীর ধারের এক নার্সিংহোম থেকেই ১৪ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পানিতে ডুবেই তারা মারা যায়। এর মধ্যেই কিউশুর মূল দ্বীপে আরো বিস্তৃত এলাকাজুড়ে ভারি বর্ষণের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।

কুমা নদীর পানি বিপৎসীমার ওপরে ছিল। দু-কূল ভাসিয়ে উপচে পড়েছে। পানিবন্দিদের উদ্ধারে সেনার সঙ্গেই নেমেছে অন্যান্য উদ্ধারকারী দল। কুমা নদীর প্রচণ্ড স্রোতে ভেসে গেছে স্থানীয় একটি সেতু। ভূমিধসেও বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে। হিতোয়োশি শহরেও ৯ জনের মৃত্যু হয়। আশিকিতাতে মৃত্যু হয়েছে আরও ৯ জনের। এরই মধ্যে লাখো বাসিন্দাকে ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বহু লোক জরুরি আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে গিয়ে উঠেছেন।

জাপানের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী জানিয়েছেন, অন্তত দুই লাখ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কিন্তু মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে করোনাভাইরাস। সংক্রমণের বিস্তার রোধে আশ্রয়শিবিরে থাকা সবাই কভিড নির্দেশিকা মেনে বারবার হাত ধুতে বলা হয়েছে। যদিও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কোনো পরিস্থিতি নেই।

বন্যার সঙ্গে মৃত্যুও আরো বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। দুর্গত এলাকায় উদ্ধারকাজে সেনাবাহিনীর সঙ্গে কাজ করছেন উপকূলরক্ষী বাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। সব মিলিয়ে ৪০ হাজার উদ্ধারকারী মোতায়েন করা হয়েছে। আগামী বুধবার পর্যন্ত এমন দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া অব্যাহত থাকবে বলে সতর্ক করেছে জাপানের আবহাওয়া বিভাগ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা