kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৪ আগস্ট ২০২০ । ২৩ জিলহজ ১৪৪১

পিছু হটল চীন, সরাল সাঁজোয়া গাড়ি-তাঁবু

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ জুলাই, ২০২০ ০৮:৩৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



পিছু হটল চীন, সরাল সাঁজোয়া গাড়ি-তাঁবু

তৃতীয় সামরিক বৈঠকে পূর্ব লাদাখে ভারত-চীন দুই দেশই নিজেদের পূর্বের অবস্থানে ফিরে যাওয়ার ব্যাপারে একমত হয়। কিন্তু, চীনের সেনাবাহিনী কবে নাগাদ তাদের বর্তমান অবস্থান থেকে সরে যাবে, সে ব্যাপারে অনিশ্চয়তা ছিল। 

এ অবস্থায় গত রবিবার ভারতের নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের সঙ্গে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠকের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চিত্র দ্রুত বদলাতে শুরু করে। গতকাল সোমবার সকালেই চীনের সেনাবাহিনী অন্তত এক কিলোমিটার পিছিয়ে যায়। আর গত রাতে আক্ষরিক অর্থেই পিছু হটল চীন।

গালওয়ান সংঘাতের পর থেকেই আন্তর্জাতিক মহলে ক্রামাগত কোণঠাসা হচ্ছিল চীন। যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, অস্ট্রেলিয়া, এমনকি ন্যাটো জোট চীনকে সতর্ক করে। যুক্তরাষ্ট্র তো রণতরি পাঠিয়ে দিয়েছে। ইউরোপ থেকে মার্কিন সেনা সরিয়ে নিয়ে আসছে এশিয়ায়। 

সেই সঙ্গে ভারতীয় সেনাবাহিনী যুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। ক্রমাগত চাপের মুখে পড়ে অবশেষে সুর নরম করতে বাধ্য হয় বেইজিং। ‌

পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকা থেকে সোমবার রাতেই আক্ষরিক অর্থে পিছু হটে যায় চীন। গতকাল সকালেই চীনের সেনাবাহিনী ভারতীয় ভূখণ্ড ছেড়ে প্রতিশ্রুতি মতো এক কিলোমিটার পিছিয়ে যায়। পরে রাতে গালওয়ান উপত্যকার পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৪ থেকে চীন যাবতীয় অবৈধ পরিকাঠামো সরিয়ে নিয়েছে। এমনকি তাদের সাঁজোয়ো গাড়িও সেখান থেকে সরানো হয়েছে।

১৪ পয়েন্ট ছাড়াও পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৫ ও ১৭ খালি করতে শুরু করেছে চীনের সেনাবাহিনী। গালওয়ান উপত্যকার বিতর্কতি অংশ থেকে সরে যাওয়ার জন্য রবিবারই চীনের সেনাবাহিনীর কাছে সরকারি বার্তা আসে। দোভালের সঙ্গে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠকের পরই দেশটির সেনাবাহিনীর কাছে নির্দেশনা আসে। সে অনুসারে চীনের সেনা সরানোর প্রস্তুতি শুরু হয়ে যায়।

সোমবার রাতে গালওয়ানের ১৪ নম্বর পেট্রোলিং পয়েন্ট সম্পূর্ণ খালি করেছে চীন। গত কয়েক দিন ধরে যে অস্থায়ী পরিকাঠামো সেখানে গড়ে তোলা হয়েছিল, তা নিজেরাই ভেঙে ফেলেছে। এমনকী নির্মাণকাজের জন্য আনা বুলডোজারগুলোও সেখান থেকে সরানো হয়েছে। সরানো হচ্ছে মোতায়েন করা যাবতীয় যুদ্ধাস্ত্র।

১৫ জুন রাতে ওই ১৪ নম্বর পেট্রোলিং পয়েন্টে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছিল ভারত-চীন। ভারতীয় ভূখণ্ডে চীনের অবৈধ নির্মাণে বাধা দিলে, চীনের সেনাবাহিনী অতর্কিত হামলা চালায়। যার জেরে নিহত হন ২০ ভারতীয় জওয়ান। ভারতীয় সেনাবাহিনীর পাল্টা হামলায় একাধিক চীনা সেনাও ১৫ জুনের ওই রাতে নিহত হয়।

ভারতীয় সেনাবাহিনী বলছে, শুধু ১৪ পেট্রোলিং পয়েন্ট নয়, ১৫ পেট্রোলিং পয়েন্ট থেকেও ২০টি তাঁবু সরিয়েছে চীন। ১০০ থেকে ২০০ ট্রুপ সেনাও ১৫ পেট্রোলিং পয়েন্ট থেকে পিছু হটেছে। পদাতিক যুদ্ধের গাড়ি এবং আর্টিলারি বন্দুকও ১৫ পয়েন্টে নেই। চীন ১৫ পয়েন্টও পুরোপুরি খালি করবে।

পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৭ পুরোপুরি খালি না-করলেও, সেখান থেকে সেনা কমিয়েছে চীন। সেখানে থাকা চীনের বুলডোজার ও তাঁবুও সরানো হয়েছে।

সূত্র : আল-জাজিরা

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা