kalerkantho

রবিবার। ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭। ৯ আগস্ট ২০২০ । ১৮ জিলহজ ১৪৪১

'বেশির ভাগ মানুষেরই করোনার ভ্যাকসিন লাগবে না'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ জুলাই, ২০২০ ০৫:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'বেশির ভাগ মানুষেরই করোনার ভ্যাকসিন লাগবে না'

মহামারি করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে বেশির ভাগ মানুষেরই মহামারি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের প্রয়োজন হবে না বলে জানিয়েছেন অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক সুনেত্রা গুপ্ত । তিনি মত প্রকাশ করে বলেন, গুরুতর শারীরিক জটিলতা না থাকলে নতুন করোনাভাইরাস প্রাণঘাতী হচ্ছে না। তাই বেশির ভাগ মানুষেরই এই রোগের ভ্যাকসিনের প্রয়োজন হবে না।  

সম্প্রতি ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের সঙ্গে আলাচারিতায় অংশ নিয়ে রোগতত্ত্ববিদ অধ্যাপক সুনেত্রা গুপ্ত  বলেন, ‘স্বাভাবিকভাবে আমরা দেখতে পাচ্ছি যে, শারীরিকভাবে সুস্থ মানুষদের ক্ষেত্রে কভিড-১৯ রোগ প্রাণঘাতী হচ্ছে না। বরং এ ক্ষেত্রে এটি একটি সাধারণ ইনফ্লুয়েঞ্জা জ্বরের চেয়ে বেশি কিছু নয়।’ তবে তিনি বলেন, বয়স্ক ও গুরুতর শারীরিক জটিলতা থাকা মানুষদের কাবু করে ফেলছে কভিড-১৯। এ ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে মানুষের হাতে যেসব ভ্যাকসিন আসবে, সেগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। এসব ভ্যাকসিন গুরুতর অসুস্থদের উপসর্গ উপশমে সহায়তা করবে। সে ক্ষেত্রে যাদের শারীরিক জটিলতা কম হবে, তাদের ভ্যাকসিন নেওয়ার প্রয়োজন হবে না।

করোনাভাইরাস মহামারির বিস্তার রোধে লকডাউনের মতো কঠোর পদক্ষেপের পক্ষে নন সুনেত্রা গুপ্ত। তিনি মনে করেন, কভিড-১৯ রোগের বিস্তার ঠেকাতে দীর্ঘ মেয়াদে লকডাউন কোনো কার্যকর পদক্ষেপ হতে পারে না। সুনেত্রার মতে, করোনাভাইরাস মহামারির ইতি ঘটবে প্রাকৃতিকভাবে এবং একসময় এটি মানুষের জীবনযাত্রার অংশ হয়ে যাবে। তিনি মনে করেন, কভিড-১৯ শেষমেশ একটি সাধারণ ইনফ্লুয়েঞ্জা হিসেবে পৃথিবীতে রয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। এই মহামারিতে শুক্রবার পর্যন্ত সারা বিশ্বে মারা গেছেন পাঁচ লাখ ২৪ হাজার ৮২৫ জন। আর আক্রান্ত হয়েছেন এক কোটি ১০ লাখ ১৮ হাজার ৬৪২ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬১ লাখ ৭৫ হাজার ৫৩৭ জন। করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা