kalerkantho

বুধবার । ৩১ আষাঢ় ১৪২৭। ১৫ জুলাই ২০২০। ২৩ জিলকদ ১৪৪১

রোহিঙ্গা নির্যাতনে মিয়ানমারের তিন সেনা কর্মকর্তা দোষী সাব্যস্ত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ জুলাই, ২০২০ ০৭:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রোহিঙ্গা নির্যাতনে মিয়ানমারের তিন সেনা কর্মকর্তা দোষী সাব্যস্ত

রোহিঙ্গা নির্যাতনের দায়ে মিয়ানমারের সামরিক আদালতে দেশটির তিন সেনা কর্মকর্তা দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার মিয়ানমারের সেনাবাহিনী বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে ওই তিন কর্মকর্তার নাম-পদবি, তাঁদের অপরাধের ধরন কিংবা শাস্তির বিষয়ে কিছুই জানানো হয়নি। 

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনের মুখে প্রায় সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা ২০১৭ সালে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলোর অভিযোগ, রাখাইনের অনেক গ্রামে নৃশংস হত্যাযজ্ঞ চালায় মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। রোহিঙ্গা নারীদের ধর্ষণের পাশাপাশি আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয় তাদের ঘরবাড়ি। মানবাধিকার সংগঠনগুলোর মতে, গু দার পাইনসহ কয়েকটি গ্রামে অন্তত পাঁচটি গণকবরের সন্ধান পাওয়া গেছে। প্রাণে বেঁচে ফেরা রোহিঙ্গাদের তথ্য অনুযায়ী, এসব গণকবরে শত শত রোহিঙ্গাকে হত্যার পর পুঁতে ফেলে সেনা সদস্যরা।

শুরুতে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। কিন্তু আন্তর্জাতিক চাপের মুখে গত সেপ্টেম্বরে অভিযোগের তদন্ত শুরু করে তারা। সেই সঙ্গে স্বীকার করে, রাখাইনের গ্রামগুলোতে সেনাসদস্যরা যথাযথ নির্দেশনা মেনে চলেনি।

গতকাল মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ‘কমান্ডার ইন চিফ’ কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, রোহিঙ্গা নির্যাতনের ঘটনায় তিন কর্মকর্তা দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন এবং তাঁদের শাস্তি দেওয়া হয়েছে। তবে বিবৃতিতে বিস্তারিত কোনো তথ্য ছিল না।

এদিকে মিয়ানমারের সামরিক আদালতের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে মানবাধিকার সংগঠন ‘অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল’। সংগঠনটির সদস্য মিং উ হা বলেন, ‘এ ধরনের বিচারব্যবস্থায় অনেক কিছুই গোপন থাকে। বিচারের ক্ষেত্রে স্বাধীনতাও থাকে না। তাই সামরিক আদালতের বিচারের মাধ্যমে সেনাবাহিনী কখনোই দায়মুক্তি পেতে পারে না।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা