kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৫ আষাঢ় ১৪২৭। ৯ জুলাই ২০২০। ১৭ জিলকদ ১৪৪১

সহিংস বিক্ষোভ থামাতে শহরে শহরে কারফিউ আমেরিকায়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩১ মে, ২০২০ ১১:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সহিংস বিক্ষোভ থামাতে শহরে শহরে কারফিউ আমেরিকায়

আমেরিকার কৃষ্ণাঙ্গ যুবক ও সাবেক বাস্কেট বল তারকা জর্জ ফ্লয়েডকে হত্যা ঘিরে সহিংস বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে পুরো যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে। ‘আমি শ্বাস নিতে পারিছ না’ -এমন শ্লোগানকে ধারণ করে ৩০টি শহরে ছড়িয়ে পড়েছে আন্দোলন। ফ্লয়েডের মৃত্যুতে ফুঁসে ওঠা বিক্ষোভকারীরা শুক্রবারের পর শনিবারও রাস্তায় নেমে এসে বিক্ষোভ দেখায় ।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দেশটির ১৬টি রাজ্যের ২৫টি শহরে কারফিউ জারি করা হয়। শহরগুলোর মধ্যে বেভারলি হিলস, লস অ্যাঞ্জেলস, ডেনভার, মিয়ামি, আটলান্টা, শিকাগো, মিনিয়াপোলিস, ফিলাডেলফিয়া, কলম্বাস, সল্ট লেক সিটি, সিয়াটল উল্লেখযোগ্য। লস অ্যাঞ্জেলসে স্থানীয় সময় শনিবার রাত ৮টা থেকে রবিবার ভোর সাড়ে ৫টা পর্যন্ত কারফিউ জারি হয়। এ সময় শহরটিতে থাকা সবাইকে ঘরে অবস্থান করতে বলা হয়।

৪৬ বছর বয়স্ক জর্জ ফ্লয়েডকে ২৫ মে সন্ধ্যায় প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তারের কিছুক্ষণ পর একজন পুলিশ অফিসার হাঁটু দিয়ে তাঁর গলা চেপে ধরলে কিছুক্ষণের মধ্যে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় একজন প্রত্যক্ষদর্শীর ধারণ করা ১০ মিনিটের একটি ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে করোনা উপেক্ষা করে প্রতিবাদে সরব হন হাজার হাজার মানুষ।

হত্যাকাণ্ডের দুদিন পর বিক্ষোভকারীরা সহিংস হয়ে ওঠেন শহরের বিভিন্ন স্থাপনায় আগুন লাগিয়ে দেন। সারা রাত মিনোপোলিস পুলিশ স্টেশনের আশপাশে বিক্ষোভ করেন। এ সময় বিভিন্ন দোকানপাটে লুটপাট চালানো হয়। ভাঙচুর করা হয় যানবাহন ও বিভিন্ন ভবনে। 

চলমান বিক্ষোভে গুলিবিদ্ধ হয়ে শুক্রবার দেশটির ফেডারেল প্রটেক্টিভ সার্ভিসের এক কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন। এক বিবৃতিতে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইর সান ফ্রান্সিসকো শাখা বলেছে, ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ফেডারেল প্রটেক্টিভ সার্ভিসের চুক্তিভিত্তিক দুই কর্মকর্তাকে লক্ষ্য করে এক ব্যক্তি গুলি ছুড়েছে। পরে একজনের মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় সময় শুক্রবার রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে বিক্ষোভকারীরা জমায়েত হতেই হোয়াইট হাউস লকডাউন করে দেওয়া হয়। বিক্ষোভকারীদের দাবি, পুলিশ এভাবে কারো সঙ্গে নির্মম আচরণ করতে পারে না। সেই সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত সকল কৃষ্ণাঙ্গের ওপর এ ধরনের নিপীড়ন বন্ধ করতে হবে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলছেন, ‘যারা আন্দোলন করছেন তারা লুটেরা ও নৈরাজ্য চায়।’

এদিকে জর্জ ফ্লয়েডকে  হত্যার জন্য অভিযুক্ত সাবেক পুলিশ ডেরেক শভিনকে সোমবার আদালতে হাজির হতে হবে।

সূত্র: রয়টার্স

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা