kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২ জুন ২০২০। ৯ শাওয়াল ১৪৪১

রিজার্ভ ব্যাংকের প্রতিবেদন

করোনায় ভারতের অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধি কমবে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ এপ্রিল, ২০২০ ১৯:৫৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



করোনায় ভারতের অর্থনীতিতে প্রবৃদ্ধি কমবে

করোনা সংক্রমণের কারণে এরই মধ্যে ভারতের অর্থনৈতিক কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে। নেতিবাচক প্রভাব পড়তে শুরু করেছে দেশটির বিভিন্ন উন্নয়ন কার্মকাণ্ডে। প্রাথমিক তথ্যের ভিত্তিতে বলা যায়, করোনার কারণে চলতি অর্থ বছরে ভারতের প্রবৃদ্ধির হার ৪.৮ শতাংশে নেমে যেতে পারে। সংক্রমণ এ ব্যাধি আরো দীর্ঘ হলে ভারতের অর্থনীতির ক্ষতি আরো বাড়বে। গত বৃহস্পতিবার দেশটির রিজার্ভ ব্যাংক প্রকাশিত ঋণ নীতি সংক্রান্ত এক প্রতিবেদনে এ আশঙ্কা করা হয়েছে। 

প্রতিবেদনে সর্তক করে বলা হয়েছে, সংক্রমণ এ ব্যাধির  কারণে বিশ্ব অর্থনীতিও বিপর্যস্ত। এর নেতিবাচক প্রভাবে এশীয় প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোতে দুভোর্গ বেশি হবে। ভারতের মতো উন্নয়নশীল দেশগুলো বেশি ভুগবে। ভারতের লকডাউন বাড়লে দেশটির অর্থনৈতিক ক্ষতিও বাড়বে। তবে কতোটা ক্ষতি হবে তার কোনো হিসাব দেওয়া হয়নি ঋণ নীতিতে। এখানে বলা হয়েছে, যে সময়ে ভারতের প্রবৃদ্ধি বাড়ছে, ঠিক সে সময়ে করোনার প্রভাব সব ওল্ট-পাল্ট করে দিল। ভারতের অর্থনীতিতে ইতোবাচক প্রভাব পড়ছিল যে সব পদক্ষেপে, তা স্থবির হয়ে পড়েছে।  

শীর্ষ এই ব্যাংকের এ প্রতিবেদন প্রকাশের আগেই অন্যান্য প্রতিষ্ঠান থেকেও ভারতের অর্থনীতিতে করোনার নেতিবাচক প্রভাব পড়ার আশঙ্কা করা হয়। দেশটির রিজার্ভ ব্যাংকের তা আরো স্পট হল। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনার সংক্রমণ রোধে এরই মধ্যে অনেক দেশ লকডাউন করা হয়েছে। বিশ্ব অর্থনীতির লকডাউন ভারতের উৎপাদন কার্যক্রম ব্যাহত করেছে। প্রবৃদ্ধি কমে যাওয়ার পিছনে এটাও উল্লেখযোগ্য কারণ।

দেশটির রিজার্ভ ব্যাংকের দাবি, এই মুহূর্তে যা অবস্থা তাতে প্রবৃদ্ধির হারের পূর্বাভাস দেওয়া কঠিন। কারণ মনে করা হচ্ছে, জন-জীবন, ব্যবসা-বাণিজ্য, উৎপাদন স্তব হওয়ায় বিশ্ব অর্থনীতিতে উৎপাদন আরো সঙ্কুচিত হবে। এতে বিশ্বব্যাপী মন্দা দেখা দিতে পারে। ভারতেও এই পরিস্থিতি দেখা দিতে পারে। ভবিষ্যতে কি ধরনের পরিস্থিতি আসবে তা অনিশ্চিত। প্রতিদিন চারদিক থেকে যে সব তথ্য আসছে, তা বৃদ্ধির ইঙ্গিতকে বদলে দিয়ে মন্দার দিকে নিয়ে যাচ্ছে। 

তবে প্রতিবেদনে করোনা প্রতিরোধের পরে সব কিছু স্বাভাবিক হলে ভারতের অর্থনীতি ছন্দে ফিরবে বলে আশা করা হয়েছে। তবে কবে ফিরবে তার সময় সীমা জানানো হয়নি। এ বিষয়ে প্রতিবেদনে মন্তব্য করা হয়েছে, কোভিডের কারণে ভারতের অর্থনীতিতে যে ক্ষত তৈরি হয়েছে, তা সারিয়ে ঘুরে দাঁড়ানো নির্ভর করবে, ভাইরাস সংক্রমণকে কতো দ্রুত নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে এবং কতো দ্রুত চারপাশ স্বাভাবিক হচ্ছে তার ওপরে। 

একই দিনে বিশ্ব অর্থনীতির বিপর্যয়ের আশঙ্কা করেছে আইএমএফও। প্রতিাষ্ঠানটির কর্ণধার ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা বলেন, কোভিড যে বিদ্যুতের গতিতে বিশ্বের সামাজিক ও অর্থনৈতিক চেহারাকে চুরমার করেছে, তা স্মরণকালে হয়েছে বলে মনে করতে পারছি না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা