kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৪ জুন ২০২০। ১১ শাওয়াল ১৪৪১

করোনাভাইরাস

ডাক্তার মাবুদ ‘মরিয়া প্রমাণ করিলেন' পিপিই নিয়ে তার শঙ্কা ঠিক ছিল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ এপ্রিল, ২০২০ ১৯:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডাক্তার মাবুদ ‘মরিয়া প্রমাণ করিলেন' পিপিই নিয়ে তার শঙ্কা ঠিক ছিল

করোনায় কাঁপছে যুক্তরাজ্যে। এমন সময় ডাক্তারদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জামের (পিপিই) সঙ্কট নিয়ে বরিস জনসনকে সতর্ক করেছিলেন আব্দুল মাবুদ চৌধুরী নামের দেশটিতে কর্মরত এক চিকিৎসক। আর আজ তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন।

আব্দুল মাবুদ চৌধুরী করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৫ দিন ধরে হাসপতালে ভর্তি ছিলেন। তিনি একজন লোকিউম ইউরোলজিস্ট ছিলেন। লন্ডনের রমর্ফোডের কুইন এলিজাবেথ হাসপাতালের ইউরোলজি বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন তিনি। তার বাড়ি বাংলাদেশের হবিগঞ্জে।

এর আগে তিনি মার্চের ১৮ তারিখ এক চিঠি লেখেন বরিস জনসনকে। সেখানে তিনি বলেন, যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া কর্মীদের জরুরিভিত্তিতে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জামের প্রয়োজন। নাহলে অনেক ডাক্তার নার্স মারা যাবেন। তিনি লেখেন, স্বাস্থ্যকর্মীরা সরাসরি রোগীদের সঙ্গে কাজ করেন। রোগমুক্ত পৃথিবীতে পরিবারের সঙ্গে তাদেরও বেঁচে থাকার অধিকার রয়েছে।

যুক্তরাজ্যে বিপুল পরিমাণে ডাক্তারদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জামের (পিপিই) সঙ্কট রয়েছে। চিকিৎসাসেবা দেওয়া স্বাস্থ্যকর্মীদের পিপিই অর্থাৎ পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ ইকুইপমেন্টের অভাব প্রকট হয়ে ওঠেছে। যেভাবে দ্রুতগতিতে সে দেশে ছড়িয়ে পড়ছে সংক্রমণ, তাতে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যথেষ্ট মুশকিল হচ্ছে। সেটা এতটাই, যে ময়লা ফেলার প্লাস্টিকের ব্যাগ দিয়ে নিজেদের মুড়ে করোনাযুদ্ধে নামতে হচ্ছে সেদেশের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের। এই ঘটনার মধ্যে দিয়েই ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটের স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজের পরিবেশ ও সরঞ্জামের শোচনীয় অবস্থার কথা প্রকাশ পেয়েছে উন্নত দেশ ব্রিটেনে।

চিকিৎসকের মৃত্যুতে শোক জানিয়ে দেশটির এক ডাক্তার ফেসবুকে লেখেছেন, নিজেই চলে গেলেন ডাক্তার মাবুদ চৌধুরী। তিনি বরিস জনসনকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছিলেন পিপিইর অভাবে অনেক ডাক্তার মারা যাবেন। ডাক্তার মাবুদ মরিয়া প্রমাণ করিলেন তিনি সত্য বলিয়াছিলেন।

সূত্র: স্কাই নিউজ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা