kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

গাছে কোয়ারেন্টিনের আজব কাহিনী!

অনিতা চৌধুরী, কলকাতা প্রতিনিধি   

২৯ মার্চ, ২০২০ ০০:৫৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গাছে কোয়ারেন্টিনের আজব কাহিনী!

করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ার পর অনেক অবাক কাণ্ড ঘটে চলেছে এই দুনিয়ায়, কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়া জেলায় ঘটল এক বিরল ঘটনা।

পুরুলিয়ার প্রত্যন্ত অঞ্চলের ভাঙ্গিডিহি গ্রামে সাত যুবক চেন্নাই থেকে ফেরেন এক সপ্তাহ আগে। গ্রামের মানুষরা করোনা আতঙ্কের কারণে তাদেরকে গ্রামে ঢুকতে দিতে চাননি, সেই সময়ে গ্রামের কিছু মানুষ পরামর্শ দিলেন, গ্রামের বাইরে গাছে ওঠে থাকবেন ওই সাত যুবক।

মাচা বেঁধে দেওয়া হলো বড় আমগাছের সঙ্গে। দেওয়া হলো মশারি এবং স্টোভ যাতে ওরা চাইলে চা বানিয়ে খেতে পারে। শালপাতায় দিনের আর রাতের খাবার গ্রামের লোকেরা পৌঁছে দিতেন ওই যুবকদের।

‘আমাদের এই অঞ্চলে হাতির খুব উৎপাত তাই গাছে মাচা পেতে থাকে অনেকেই। তাই ওই যুবকরা থাকছিল’ বলেন গ্রামের এক পঞ্চায়েত সদস্য।

যদিও ১৪ দিন গাছে কোয়ারান্টিনে থাকার কথা ছিল, আজ ওই যুবকদের নেমে আসতে হলো, কারণ জেলা প্রশাসনের কাছে পৌঁছে গেছে এই আজব কাহিনী।

‘আমরা জানতে পারার পর ওই যুবকদের নামিয়ে আনা হয়েছে। এবং তাদেরকে স্বাস্থ্য দপ্তরের একটি সেন্টারে ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টিন করে দেওয়া হয়েছে’, জানান পুরুলিয়ার জেলাশাসক রাহুল মজুমদার।

গাছ থেকে নামার পরে ওই যুবকরা সাংবাদিকদের বলেন, গাছে থাকার অভ্যাস ছোটবেলা থেকেই তাই বেশি অসুবিধা হয়নি।

তবে ছয় মাস পরে গ্রামে ফিরে নিজের লোকেদের সঙ্গে দেখা না করে গাছে থাকতে হচ্ছিল বলে একটু মন খারাপ লাগছিল বলেন এক যুবক।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা