kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ১৯ চৈত্র ১৪২৬। ২ এপ্রিল ২০২০। ৭ শাবান ১৪৪১

ভারতে মন্ত্রিসভার বৈঠকেও মেনে চলা হলো ‘সামাজিক দূরত্ব’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ মার্চ, ২০২০ ২০:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতে মন্ত্রিসভার বৈঠকেও মেনে চলা হলো ‘সামাজিক দূরত্ব’

ভারতের মন্ত্রিসভার বৈঠকেও মেনে চলা হলো সামাজিক দূরত্ব। বেশ কিছুটা দূরে দূরেই বসে রয়েছেন দেশটির কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। একটি চেয়ারের থেকে অন্য চেয়ারের দূরত্বও এক মিটারের বেশি হতে পারে।

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্বকেই গুরুত্ব দিচ্ছে ভারত। প্রধানমন্ত্রী মোদি আগেই জানিয়েছিলেন তিনিও মেনে চলছেন সামাজিক দূরত্ব। করমর্দনের পরিবর্তেই অনেক আগে থেকেই তিনি নমস্কার করছেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাড়িতেই মন্ত্রিসভার বৈঠক ডাকা হয়েছিল আজ বুধবার সকাল এগারোটার দিকে। সকল মন্ত্রীরাই হাজির হয়েছিলেন ৭ নম্বর লোক কল্যাণ মার্গে তার বাসভবনে। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় গতকাল রাতে ২১ দিনের জন্য লকডাউনের ঘোষণা করেছিলেন মোদি। সেই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা ও বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্যই মন্ত্রিসভার বৈঠক ডাকা হয়েছে। কিন্তু সেই বৈঠকেও দেখা গেল অন্যছবি। রীতিমতো কঠোর নিয়ম মেনে চলছেন প্রধামন্ত্রীর মন্ত্রীরা। 

ভারতে করোনাভাইরাস মহামারির আকার নিয়েছে। এখনো পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬০। মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রুখতে সামাজিক দূরত্বব নিশ্চিত করতে রবিবার জনতা কারফুর ডাক দিয়েছিলেন মোদি। সংক্রমণ এড়াতে এদিন থেকেই লকডাউনের পথে গোটা দেশ। আগেই অবশ্য বন্ধ হয়ে গিয়েছিল রেল ও বাস পরিষেবা। আন্তর্জাতিক বিমান সেবা বন্ধ হয়েছিল আগেই। বুধবার থেকে আগামী ২১ দিনের জন্য প্রায় স্তব্ধ ভারতের জনজীবন। 

ভারতে ঘরবন্দি একশো কোটির বেশি মানুষ। চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীসহ জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত নাগরিকদেরই দেখা যাবে রাস্তায়। এই পরিস্থিতিত নিত্য প্রয়োজনীয় রসদের সরবরাহ সহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করতেই ডাকা হয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক। তেমনই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা