kalerkantho

সোমবার । ২৩ চৈত্র ১৪২৬। ৬ এপ্রিল ২০২০। ১১ শাবান ১৪৪১

যুক্তরাষ্ট্রের গবেষকদের দাবি

তিন ঘণ্টায় করোনার টিকা তৈরি, পরীক্ষায় লাগবে কয়েক মাস!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৭:১৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তিন ঘণ্টায় করোনার টিকা তৈরি, পরীক্ষায় লাগবে কয়েক মাস!

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সান দিয়েগো ল্যাবের গবেষকরা জানিয়েছেন, মাত্র তিন ঘণ্টায় তারা করোনাভাইরাসের পরীক্ষামূলক একটি ভ্যাকসিন তৈরি করেছেন। করোনার বিরুদ্ধে এটি ভালো কাজ করবে। ইনোভিও ফার্মাসিউটিক্যালস এখন এটি নিয়ে আরো পরীক্ষা চালাবে। প্রথমে কোনা প্রাণীর ওপর, তারপরে মানুষের ওপর এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করে পরীক্ষা করা হবে। পরীক্ষা শেষ করতে কয়েক মাস সময় লাগতে পারে।

তারা জানান, প্রাণীর ও মানুষের ওপর পরীক্ষা করার পর সফল হলে খুব শিগগিরই এই ভ্যাকসিনটি বাজারে পাওয়া যাবে। তারা আশা করছেন, এই ভ্যাকসিনটি ভালো কাজ করবে। সেই সঙ্গে তারা সফলও হবে বলে আশা করেন।

এর আগে চীনা বিজ্ঞানীরা ৯ জানুয়ারি করোনাভাইরাসটির জেনেটিক সিকোয়েন্স প্রকাশ করেছিলেন। পরে ইনোভিও এবং বিশ্বের অন্যান্য ল্যাবগুলোর গবেষকরা করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরি করার জন্য তাত্ক্ষণিকভাবে কাজ শুরু করেছিলেন।

ইনোভিওর গবেষণা ও উন্নয়নবিষয়ক পরিচালক ট্রেভর স্মিথ বলেন, আমাদের একটি অ্যালগরিদম রয়েছে যা আমরা নিজেরাই ডিজাইন করেছি। পরে আমরা ডিএনএ সিকোয়েন্সটি আমাদের অ্যালগরিদমে রেখেছি। এরপর সেই অ্যালগরিদমের সাহায্যে অল্প সময়ের মধ্যে ভ্যাকসিন তৈরি করেছি। স্মিথ বলেন, এটি এমন কিছু; যার জন্য আমরা প্রশিক্ষণ নিয়েছি।

ইনোভিও শুধুমাত্র করোনার ভ্যাকসিন তৈরির বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে এমন নয়। এর আগে সংস্থাটি জিকা ভাইরাস, মিডিল ইস্ট রেসপিটারি সিন্ড্রোম (এমইআরএস) ও ইবোলার ভ্যাকসিন নিয়েও কাজ করেছে। বলা হচ্ছে, করোনার ভ্যাকসিনটি এক টুকরা জৈব সফ্টওয়্যারের মতো কাজ করবে। ভ্যাকসিনটি করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি করবে।

নতুন করে তৈরি করা করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনটি আলাদা বলে জানিয়েছেন জনস হপকিনস সেন্টার ফর হেলথ সিকিউরিটির সিনিয়র স্কলার আমেশ আদালজা। তিনি বলেন, আমি মনে করি, এই ভ্যাকসিনটি ভালো কাজ করবে। আর ইনোভিওর রয়েছে উন্নত প্রযুক্তি যা তারা ডিএনএ ভ্যাকসিন তৈরিতে ব্যবহার করছে। আর এটি চিরাচরিত ভ্যাকসিনগুলোর চেয়ে আলাদা।

এদিক, করোনাভাইরাসে চীনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৭৭০ জনে দাঁড়িয়েছে। রবিবার মারা গেছেন ১০৫ জন। এর মধ্যে অন্তত একশ জন হুবেই প্রদেশের বাসিন্দা। নতুন করে আক্রান্ত হওয়া দুই হাজার ৪৮ জনের মধ্যে এক হাজার ৯৩৩ জনই হুবেই প্রদেশের। চীনের স্বাস্থ্য কমিশন এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। 

চীনের স্বাস্থ্য কমিশন বলছে, করোনাভাইরাসে এনিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে ৭০ হাজার ৫৪৮ জনে। জানা গেছে, ভাইরাসটির ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে নতুন কঠোর পদক্ষেপের ঘোষণা দিয়েছে হুবেই কর্তৃপক্ষ। প্রদেশটির রাস্তায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সব ধরনের ব্যক্তিগত যান চলাচল।

এরই মধ্যে করোনাভাইরাসের উপসর্গ গোপন করাকে ফৌজদারি অপরাধ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন চীনের একটি আদালত। একইসঙ্গে আক্রান্ত হওয়ার উপসর্গ কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে গোপন করলে তার মৃত্যুদণ্ড পর্যন্ত হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

এই রকম আরো খবর

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা