kalerkantho

বুধবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ১ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

কাশ্মীরে গিয়ে কী বলতে হবে তা-ও মন্ত্রীদের শিখিয়ে দিলেন মোদি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ১৬:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কাশ্মীরে গিয়ে কী বলতে হবে তা-ও মন্ত্রীদের শিখিয়ে দিলেন মোদি

পাঁচ মাস আগে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। তারপরে আজ শনিবার থেকে সাতদিনের সফরে জম্মু-কাশ্মীর যাচ্ছে এনডিএ সরকারের এক প্রতিনিধিদল। তাতে থাকছেন ৩৬ জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

ভারতের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, জম্মু-কাশ্মীর সফর নিয়ে গতকাল শুক্রবার মন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি মন্ত্রীদের বলেছেন, জম্মু-কাশ্মীরে গিয়ে উন্নয়নের বিষয়টি তুলে ধরবেন। বিশেষ করে বলবেন গ্রামোন্নয়নের কথা। মোদি খুব নির্দিষ্ট করে বলেছেন, কাশ্মীরে গিয়ে মানুষকে কেন্দ্রীয় সরকারের নানা প্রকল্পের কথা বুঝিয়ে বলবেন। একইসঙ্গে বলেছেন, মন্ত্রীরা অবশ্যই যাবেন গ্রামাঞ্চলে। সেখানকার মানুষের সঙ্গে কথা বলবেন। শুধু শহরে নিজেদের সীমাবদ্ধ রাখবেন না।

জম্মু-কাশ্মীরে সফরে যাওয়া মন্ত্রীদের মধ্যে রয়েছে স্মৃতি ইরানি, পিযুষ গয়াল, জিতেন্দ্র সিং, রবিশংকর প্রসাদ, কিরেন রিজিজু, হরদিপ পুরি, জি কিষেন রেড্ডি, পুরুষোত্তম সিং রুপালা, মহেন্দ্রনাথ পান্ডে, জেনারেল ভি কে সিং, গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত এবং অনুরাগ ঠাকুর।

সংবিধানের ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার পর থেকেই বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। স্থানীয় রাজনীতিকদের আটকে রেখে ও ইন্টারনেট বন্ধ করে গণতান্ত্রিক অধিকারকে খর্ব করেছে মোদি সরকার। বিজেপির মন্ত্রীদের সফরকে বিদ্রুপ করে দেশটির প্রধান বিরোধী দল বলেছে, মন্ত্রীরা ‘প্রপাগান্ডা মিশনে’ যাচ্ছেন। বৃহস্পতিবার কংগ্রেস নেতা কপিল সিব্বল টুইট করেন, ‘অমিত শাহ বলছেন, কাশ্মীরে সব স্বাভাবিক আছে। তাই যদি হবে, তাহলে সেখানে প্রচার করার জন্য ৩৬ জনকে পাঠাচ্ছেন কেন? যারা প্রচার করবেন না, এমন রাজনীতিকদের তো যেতে দিতে পারতেন। তারা মানুষের সঙ্গে কথা বলে বুঝতেন, সেখানকার পরিস্থিতি কিরকম।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা