kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

'কোনও বিল-খাল বাংলাকে আটকাতে পারবে না'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১০:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'কোনও বিল-খাল বাংলাকে আটকাতে পারবে না'

সুবোধ সরকার

সোমবার মধ্যরাতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হয় ভারতের লোকসভায়। এ প্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে তোপ দাগলেন কবি সুবোধ সরকার। মঙ্গলবার কাটোয়া বইমেলার মঞ্চ থেকে তিনি বলেন, সাড়া পৃথিবীতে ২৬ কোটি মানুষ বাংলা বলতে পারে। একজন বাঙালি হিসেবে আমার গর্ব হয়। এতো মানুষ একসঙ্গে বলতে পারে-কোনও শক্তি নেই যা আমাদের শেষ করতে পারে। তিনি বলেন,কোনও বিল, কোনও খাল বাংলাকে আটকাতে পারবে না। 

সুবোধ সরকার বলেন, বাংলা যে গরিমার ভেতরে আছে, যে গৌরবের ভেতরে আছে, যে ভালবাসার ভেতরে আছে, বাংলা সেখান থেকে আরও আরও উঠে দাঁড়াবে।

তিনি বলেন, কাটোয়া বইমেলাও সেই লড়াইটা লড়ছে। এখনকার মানুষকে, এখানকার পাঠককে, কাটোয়া বইমেলার সমস্ত সদস্যকে আমি অভিনন্দন জানাই। এই লড়াইয়ে আমরা সবাই আছি।

সোমবার রাতে দীর্ঘ বিতর্কের পর লোকসভায় পাস হয়ে গেল সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিল বা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। সোমবার দুপুরে লোকসভায় এই বিল পেশ করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এরপর দীর্ঘ বিতর্কের পর রাত ১২ টা নাগাদ পাশ হয় সেই বিল।

এই বিলের সমর্থনে ভোট পড়েছে ৩১১ টি ও বিপক্ষে ৮০টি। এদিন সকাল থেকেই এই বিলকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয় সংসদ। কংগ্রেস, তৃণমূল সব বিরোধীদলের পক্ষ থেকে এই বিলের বিরোধিতা করা হয়। পরে সব প্রশ্নের জবাব দেন অমিত শাহ। অনেকের মতে, নাগরিকত্ব সংশোধন হলে বহু মানুষকে বিশেষ করে বাঙালিতে প্রবল অসুবিধের মুখে পড়তে হবে।

ওই বিলের বিরোধিতা করে সুবোধ সরকার বলেন, আজ একজন বাঙালি নোবেল পুরস্কার গ্রহণ করেছেন সুইডেনে। সুতরাং বাংলা সব দিক থেকে এগিয়ে। যারা মধ্যরাতে বিল এনে পরিকল্পনা করে বাঙালিকে কোপ মারে, তারা দেখুক চোখ খুলে বাংলাকে, বাঙালিকে কখনও শেষ করা যাবে না। বাংলাকে যে মুহূর্তে মারবে, বাংলা সেই মুহূর্তে আরও উঠে দাঁড়াবে।

সিটিজেন সিপ অ্যামেন্ডমেন্ট বিলের বিরোধিতা করে প্রতিবাদ চলছে দেশের বিভিন্ন অংশ সহ উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতেও। ছয় দশক পুরনো নাগরিকত্ব বিল সংশোধন করে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, আফগানিস্তানের অ-মুসলিমদের ভারতীয় নাগরিকত্ব পেতে সাহায্য করবে। লোকসভায় কংগ্রেস এই বিলের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছে। 

তাঁদের বিশ্বাস, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ভারতীয় সংবিধান বিরোধী একইসঙ্গে ধর্মনিরপেক্ষ নীতি, সংস্কৃতি এবং সভ্যতা বিরোধী।

সূত্র : কলকাতা২৪

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা