kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

পাকিস্তানি ৬২৯ নারীকে চীনে বিক্রি, চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৯:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাকিস্তানি ৬২৯ নারীকে চীনে বিক্রি, চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ

পাকিস্তান থেকে ছয়শ ২৯ জন কিশোরী ও নারীদের চীনের বাজারে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। তাদেরকে জোরপূর্বক চীনে বিয়ে দিয়ে দেওয়া, ধনী চীনাদের কাছে বিক্রি করে দেওয়ার মতো তথ্যও প্রকাশ করেছে পাকিস্তান। পাকিস্তানের দারিদ্র ও সুরক্ষার অভাবে পাকিস্তান থেকে বেশি সংখ্যক নারী পাচারের ঘটনা যে ঘটে, সেটা স্বীকারও করে নিয়েছে দেশটি।

গত বছর পাচারের ঘটনায় কত সংখ্য নারীকে অন্য দেশে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, তারও পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। বিপুল সংখ্যক নারী পাচারের পেছনে রয়েছে পাকিস্তান ও বেইজিংয়ের জোট। বেইজিংয়ের সঙ্গে জোটের পর এই পাচারের সংখ্যা বিপুল হারে বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সম্প্রতি, পাচারের কাজে যুক্ত ৩১ জন চীনা ব্যাক্তিকে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে। অন্যদিকে পুলিশের হস্তক্ষেপে নারীদের সচেতন করার চেষ্টা হলেও তা ব্যর্থ হয়েছে বহুবার। কারণ, পরিবারের চাপে কিংবা ভয় দেখিয়ে চুপ থাকার হুমকি দিয়ে বেশিরভাগ নারীকে হাতের পুতুল করে রেখে দেওয়া হয়। 

ফলে পুলিশ বা আদালত কেউই শেষ পর্যন্ত সমস্যার সমাধান করতে পারেনি। মুখ খুললেই মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে মুখ বন্ধ করে রাখায় মেয়েরা সাহস করে এগিয়ে আসতে পারছে না বলে মনে করছে তদন্তকারীরা।

এ বিষয়ে পাকিস্তানের একজন তদন্ত কর্মকর্তা জানান, ওইসব কিশোরী ও নারীদের জন্য কেউ এগিয়ে আসছে না। পুরো প্রক্রিয়াটি এখনো চলছে। এটা আরো বাড়ছে। কারণ, তারা জানে তারা এটা করে পার পেয়ে যাবে। কর্তৃপক্ষও চেষ্টা করছে না। সবাই জোর করছে, যেন এ বিষয়ে তদন্ত না হয়। ফলে পাচারের ঘটনা বেড়েই চলেছে এখন। অন্যদিকে এই পাচারের ঘটনা নাকি জানেই না চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা