kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

মুসলিমদের দাবি কেন নাকচ ভারতের শীর্ষ আদালতে?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ নভেম্বর, ২০১৯ ১৬:৫৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুসলিমদের দাবি কেন নাকচ ভারতের শীর্ষ আদালতে?

ভারতে আলোচিত বাবরি মসজিদ মামলার রায় দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। আজ শনিবার এই মামলার রায় দেন ভারতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। আর এই রায় নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে। অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমেন (এআইএমআইএম) প্রেসিডেন্ট আসাদউদ্দিন ওয়েইসি। তার দাবি, সুপ্রিম কোর্টের রায়ে বাস্তব সত্যির জয় হয়নি। এদিকে, সম্পূর্ণ বিষয়টিকে ‘অসংবেদনশীল’ বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মোহাম্মদ কুরেশি। তিনি বলেন, বাবরি মসজিদ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায় মোদি সরকারের ধর্মান্ধ আদর্শের প্রতিফলন।

রায় নিয়ে একটি বিশ্লেষণ করেছে ভারতের জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। সেখানে তুলে ধরা হয়েছে  মুসলিমদের কোন দাবি, কেন নাকচ শীর্ষ আদালতে? প্রতিবেদনে বলা হয়, পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ বাবরি মসজিদ মামলার রায় গিয়ে বলেছে মুসলিমরা বিতর্কিত জমির অধিকার কখনোই হারাননি, কিন্তু তারা তাদের দখলের অধিকারও প্রতিষ্ঠা করতে পারেননি।

সুপ্রিম কোর্টের সামনে প্রশ্ম ছিল, যে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড জমির অধিকার আইনি জবরদখলের মাধ্যমে অর্জন করতে পেরেছে কিনা। আইনি জবরদখল হল কোনো একটি সম্পত্তির দখল যা শান্তিপূর্ণ, নিরবচ্ছিন্ন এবং ধারাবাহিক হওয়া প্রয়োজন।

এদিকে কোর্টে মুসলিম পক্ষ দাবি করেছে, চারশ বছর আগে বাবর এই মসজিদ তৈরি করেছিলেন এবং যদি এ কথা মনে করাও হয় যে ওই জমিতে আগে মন্দির ছিল, তাহলে মুসলিমরা মসজিদ নির্মাণের সময় থেকে মসজিদ ভাঙার সময় পর্যন্ত দীর্ঘদিনের ধারাবাহিক ও একপাক্ষিক দখলের মাধ্যমে এই জমির আইনি জবরদখলকারী। সুপ্রিম কোর্ট এই বিষয়টি খারিজ করে দিয়েছেন। এলাহাবাদ হাইকোর্টের দুই বিচারপতিও একই মত দিয়েছিলেন। 

বিচারপতি ডিভি শর্মা বলেছিলেন, যেহেতু এটি একটি খোলা জায়গা এবং মুসলিমসহ সকলেই সেখানে যান, ফলে আইনি জবরদখলের দাবি মুসলিমরা করতে পারেন না। তিনি বলেছিলেন, দীর্ঘদিনের দখল মানেই আইনি জবরদখল নয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা