kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নোট বন্দির তিন বছর পূর্তিতে মমতা-রাহুলের ক্ষোভ

অনিতা চৌধুরী, কলকাতা প্রতিনিধি   

৮ নভেম্বর, ২০১৯ ১৬:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নোট বন্দির তিন বছর পূর্তিতে মমতা-রাহুলের ক্ষোভ

প্রথম থেকেই নোটবন্দি নিয়ে দ্বিমত পোষণ করেছিলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। নোটবন্দির সিদ্ধান্তের তৃতীয় বর্ষপূর্তিতেও আবারো কেন্দ্রকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন তিনি। একটা সিদ্ধান্তে ভারতের যে ঠিক কতটা ক্ষতি হয়েছে, টুইটের মাধ্যমে সে কথাই তুলে ধরেছেন তিনি।

২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর সে দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিল করার কথা ঘোষণা দেন। নোট বাতিলের ফলে বহু কালো টাকা ও অবৈধ লেনদেন ধরা পড়েছে ঠিকই। তবে দেশের বহু মানুষ সমস্যার মুখোমুখিও হন। 

আচমকাই ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিল হয়ে যাওয়ায় প্রায় থমকে গিয়েছিল সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন জীবন। মোদি সরকারের বিরোধীদের দাবি, নোটবন্দির পর থেকে তিন বছর কেটে গেলেও দেশবাসীর পক্ষে স্বাভাবিক এই এক বছর সময়ের মধ্যে জীবন স্বাভাবিক ছন্দে ফেরা আর সম্ভব হয়নি। এখনো বাতিল নোট নিয়ে ভোগান্তির শিকার রিজার্ভ ব্যাংক। 
তবে এটা প্রথমবার নয়। এর আগেও নোটবন্দির বিরোধিতায় পাশাপাশি জিএসটি প্রণয়ন নিয়েও সরব মমতা।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি এক টুইট বার্তায় লেখেন, ২০১৬ সালে আজকের দিনে নোটবন্দি চালু করা হয়। ঘোষণার কিছুক্ষণের মধ্যেই আমি বলেছিলাম দেশের অর্থনীতি ও সাধারণ মানুষের জীবন এর ফলে বিঘ্নিত হবে। এখন বিশ্বের তাবড় অর্থনীতিবিদ থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ ও বিশেষজ্ঞ সবাই একই কথা বলছেন। সেই দিন অর্থনীতির বিপর্যয় শুরু হয়েছিল আর আজ দেখুন কী পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। ব্যাংক সংকটে, অর্থনীতি মন্দায়। সকলে ভুক্তভোগী। কৃষক থেকে মজদুর, ছাত্র থেকে যুব, ব্যবসায়ী থেকে গৃহবধূ সকলেই।

এছাড়াও, নোটবন্দির তিন বছর পূর্তিতে নরেন্দ্র মোদি সরকারের ওই সিদ্ধান্তকে 'সন্ত্রাসী হামলা' তকমা দিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। তার অভিযোগ, ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের এখন পর্যন্ত বিচার হয়নি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা