kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

স্বাধীন রাষ্ট্র চায় কাতালানরা, বিক্ষোভ দমনে কড়া বার্তা মেয়রের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ অক্টোবর, ২০১৯ ২১:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বাধীন রাষ্ট্র চায় কাতালানরা, বিক্ষোভ দমনে কড়া বার্তা মেয়রের

স্বাধীন কাতালোনিয়ার দাবিতে প্রতিবাদকারীদের টানা পাঁচ দিন ধরে আন্দোলনে নড়েচড়ে বসে কড়া বার্তা দিলেন বার্সেলোনার মেয়র। বিক্ষোভকারীদের সরে যেতে বলে মেয়র আদা কোলাউ বলেছেন, এটা চলতে পারে না। বার্সেলোনার মতো শহরে এই পরিস্থিতি মানায় না।

পুরো স্পেনের সঙ্গে সেখানকার প্রায় নিয়ন্ত্রক রাজ্য কাতালোনিয়ার ঝামেলা নতুন কিছু নয়। ইউরোপের এই দেশটির মূল নিয়ন্ত্রক কাতালোনিয়া। কী অর্থনীতি, কী সংস্কৃতি– সব কিছুতেই স্পেনকে চালিত করে দক্ষিণাংশের এই অঞ্চল। ১৯৩৯ সালের গৃহযুদ্ধের পর কাতালোনিয়াকে স্পেনের অংশ হিসেবে রাখা হলেও, অতিরিক্ত ক্ষমতাপ্রদান করা হয়। 

কাতালোনিয়ার আলাদাভাবে বিশেষ পার্লামেন্টও তৈরি হয়। রয়েছে পৃথক পতাকা। এখানকার বাসিন্দারা নিজেদের ‘স্পেনীয়’ বলার চেয়ে ‘কাতালান’ বলতে বেশি পছন্দ করেন। কিন্তু সময় যত গড়াতে থাকে, ততই কাতালোনিয়ার ছবিটা বদলে যায়। ধীরে ধীরে বৃহত্তর অংশ হিসেবে স্পেনের মূল প্রশাসন কাতালোনিয়ার বিশেষ পার্লামেন্টের ক্ষমতা খর্ব করে দেয়। 

এতেই ক্ষেপে ওঠেন সেখানকার বাসিন্দারা। স্পেন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে ‘স্বাধীন কাতালান’ রাষ্ট্রের দাবি জোরদার হয়। আজকের পরিস্থিতি তারই অংশ। আগেও একবার স্বাধীনতার জন্য গণভোট হয়েছিল সেখানে। ৯০ শতাংশ ভোট পড়েছিল ‘স্বাধীন কাতালান’-এর পক্ষে। 

কিন্তু স্পেন সরকার নিজেদের ক্ষমতাবলে তা হওয়া আটকে গেছে। এবারের পরিস্থিতি অবশ্য এতটাই অগ্নিগর্ভ যে, তা চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে স্পেন প্রশাসনের কপালে।

খেলা, পর্যটন-সহ একাধিক ক্ষেত্রে কাতালোনিয়া স্পেনের অর্থনীতির মূল নিয়ন্ত্রক হওয়ার ফলে তাকে সঙ্গে রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ স্পেনের কাছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমর্থন সঙ্গে থাকার সুবাদে স্পেন কাতালোনিয়ার ওপর চাপ তৈরি করতে পারছে এখনো। 

তবে অর্থনীতির দিকটি দেখলে, কাতালোনিয়া যদি সত্যিই পৃথক হয়ে যায়; তাহলে হুড়মুড়িয়ে ধসে পড়বে স্পেন। সে কারণে ‘স্বাধীন কাতালান’-এর পক্ষে আন্দোলন দমন করা অত্যন্ত জরুরি তাদের জন্য। আন্দোলনে অংশগ্রহণকারীদের ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী’, ‘বিদ্রোহী’ বলে এরই মধ্যে চিহ্নিত করে দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা