kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ভাই ধর্ষণ করেছে জানানোর পর বাবাও ধর্ষণ করা শুরু করলো!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ অক্টোবর, ২০১৯ ১৭:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভাই ধর্ষণ করেছে জানানোর পর বাবাও ধর্ষণ করা শুরু করলো!

১৭ বছরের এক কিশোরী তার ৭২ বছর বয়সী বাবা ইব্রাহিম ডানলামি ইউনুসার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন। কিশোরীর অভিযোগ তারা ৭২ বছর বয়সী বাবা তাকে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করে আসছেন। যার ফলে তার গর্ভে এখন ৮ মাসের একটি সন্তান রয়েছে। নাইজেরিয়ার গোম্বে প্রদেশের ইয়ামালতু দেবা স্থানীয় সরকার এলাকার দাদিদ কোয়া প্রদেশে এই ঘটনা ঘটেছে।

বাবা ছাড়া বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধেও দীর্ঘদিন ধরে তাকে ধর্ষণের অভিযোগ এনেছেন ওই কিশোরী। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসের মধ্যে তার ভাই তাকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ করেন ওই কিশোরী।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাসে আদালতে দায়ের করা মামলার অভিযোগপত্রে ১৭ বছরের ওই কিশোরী জানান, বড় ভাই ইউসুফ তাকে ধর্ষণ করছে এই কথা বাবাকে জানানোর পর বাবাও তাকে ধর্ষণ করতে শুরু করে। কিন্তু বাবার অপকর্মের বাধা দিতে গেলেই বাবা তাকে পিতৃত্ব থেকে ত্যাজ্য করার হুমকি দিতো।

কিন্তু এক সময় ওই কিশোরী সন্তান সম্ভবা হয়ে পড়েন। কিন্তু তারা বা বা ভাই কেউ ওই সন্তানের দায় নিতে অস্বীকার করে। আর এরপরই তিনি আদালতের দ্বারস্থ হন।

কিশোরী আদালতকে বলেন, ‘আমার বাবা ও ভাই অনেকবার আমাকে ধর্ষণ করেছে। যার ফলে আজ আমার গর্ভে সন্তান এসেছে। বিষয়টি আমি তাদেরকে জানাই। কিন্তু তারা এর দায় অস্বীকার করেন। এরপরই আমি আদালতের দ্বারস্থ হয়েছি।’

আদালতের জিজ্ঞাসাবাদেও ওই কিশোরীর বাবা নিজের মেয়েকে ধর্ষণের কথা অস্বীকার করেছেন। কিশোরীর বাবার দাবি তার মেয়ে এক ট্যাক্সি চালকের সঙ্গে প্রেম করতো। সেই ট্যাক্সি চালকই হয়তো তার মেয়ের গর্ভের সন্তানের বাবা।

ইব্রাহিম ইউনুসা তার মেয়েকে ধর্ষণে তার ছেলের দায়ও অস্বীকার করেছেন। তার দাবি তার মেয়ে যখন গর্ভবতী হয় তখন তার ছেয়ে ইউসুফ বাড়িতেই ছিলো না। এমনকি ওই শহরের বাইরে ছিলো।

তবে কিশোরীর বাবা স্বীকার করেছেন যে তার মেয়ে একবার ভাইয়ের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেছিলো।

কিশোরীর বাবা আদালতকে আরো জানান, যে তিনি তার গর্ভবতী মেয়ের মাকে গর্ভপাত ঘটানোর জন্য টাকাও দিয়েছেন। ওই কিশোরীর মা তার আগের স্ত্রী। যার সঙ্গে এখন তার সম্পর্ক নেই।

আদালত বিষয়টির র্পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করে বিচার মন্ত্রণালয়ের পরামর্শ মতো কাজ করার আদেশ দিয়েছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা