kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

‘ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর তুরস্কের বিজয়’

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ২২:৩৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর তুরস্কের বিজয়’

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের সঙ্গে বৈঠকের পর তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দিবিরোধী অভিযান ৫ দিনের জন্য বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছেন। তবে এই ৫ দিনের যুদ্ধবিরতির মধ্যে তুরস্ক বরাবর সিরিয়ার ৩৫ কিলিমিটার এলাকা থেকে কুর্দি যোদ্ধাদেরকে সরে যেতে হবে। মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সও এই সময়ের মধ্যে কুর্দি যোদ্ধাদের নির্দিষ্ট এলাকাগুলো থেকে সরে যেতে আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রকৃতপক্ষ এর মধ্যে দিয়ে তুরস্ক যা চেয়েছিল সবই পেল। গত সপ্তাহে অপারেশন পিস স্প্রিং শুরুর আগে থেকে আঙ্কারা বলে আসছিলো তারা সীমান্ত বরাবর ৩৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে সেইফ জোন তৈরি করবে। এতে তুরস্কের জন্য দুটি বড় সুবিধা আছে। একটি হলো সীমান্তে কুর্দিদের হুমকি থাকবে না, অন্যটি হলো তুরস্কের অভ্যন্তরে থাকা ৩৫ লাখ সিরিয়ান শরণার্থীদের ২০ লাখকে এই সেইফ জোনে বাস করতে দেয়া হবে।

এর ফলে সিরিয়ার বড় একটি অঞ্চল তুরস্কের প্রভাবাধীন থাকবে। কিন্তু কুর্দিরা তুরস্ককে সেইফ জোন নির্মাণ করতে দেবে না বলেই বদ্ধ পরিকর ছিল। যার ফলে সামরিক অভিযানে যায় আঙ্কারা। এবং অভিযানের ৯ম দিনে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায়ই সেইফ জোনের দাবি মেনে নিয়ে ৩৫ কিলোমিটার এলাকা ছাড়তে কুর্দিদের আহ্বান জানালো মার্কিন প্রশাসন। এর মাধ্যমে তুরস্কের উভয় চাওয়াই পূর্ণ হলো।

এরদোগান যে এই যুদ্ধবিরতি একচেটিয়া জয়লাভ করলেন তা নিয়ে সরব মার্কিন মিডিয়া। নিউইয়র্ক টাইমস এক সম্পাদকীয়র শিরোনাম করেছেন, “Turkey’s Victory Over Donald Trump” অর্থাৎ, ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর তুরস্কের বিজয়। আর সিএনএন শিরোনাম করেছেন, “Pence announces Syria ceasefire that appears to give Turkey everything it wants” অর্থাৎ, পেন্স সিরিয়া যুদ্ধবিরবতি ঘোষণা করলেন, যাতে তুরস্কের সব চাওয়া পূর্ণ হলো।

তবে যুদ্ধবিরতিকে স্বাগত জানালেও সৈন্য প্রত্যহারের শর্তে কুর্দিরা রাজি হয়েছে কিনা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

আঙ্কারায় সংবাদ সম্মেলনে পেন্স বলেন, ‘সব ধরনের যুদ্ধ ৫ দিন বন্ধ থাকবে। তুরস্কের হিসাবে তারা সীমান্ত এলাকায় যে ‘নিরাপদ অঞ্চল’ সৃষ্টি করতে চায়, ওই এলাকা থেকে কুর্দি বাহিনী প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্র সাহায্য করবে’।

কুর্দি নেতৃত্বাধীন বাহিনীর অন্যতম শীর্ষ কমান্ডার মজলুম কোবানি বলেছেন, তারা রাস আল-আইন ও তাল আবিয়াদে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হচ্ছে কিনা তা দেখবেন।

‘অন্য এলাকার ভাগ্য নিয়ে আমাদের সঙ্গে আলোচনা হয়নি,’ বলেছেন তিনি।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক যুদ্ধ পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানিয়েছে, যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্ত হওয়ার পরও রাস আল-আইনে সংঘর্ষের খবর পেয়েছেন তারা।

তুরস্কের এ ‘অপারেশন পিস স্প্রিং’ অভিযানের ৮ দিনে সিরিয়ায় অন্তত ৭২ বেসামরিকের মৃত্যু হয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা। উদ্বাস্তুর সংখ্যা ছাড়িয়ে গেছে ৩ লাখ।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতিকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন এতে ‘লাখ লাখ প্রাণ রক্ষা পাবে’।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা