kalerkantho

বুধবার । ২০ নভেম্বর ২০১৯। ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ব্রেক্সিট নিয়ে সমঝোতা

জুয়েল রাজ, লন্ডন থেকে   

১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ১৭:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্রেক্সিট নিয়ে সমঝোতা

দীর্ঘ আলোচনা আর নানা নাটকীয়তার পর ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে যেতে (ব্রেক্সিট) একটি চুক্তির ব্যাপারে সমঝোতায় পৌঁছেছে যুক্তরাজ্য। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জঁ-ক্লোদ ইয়ুংকার পৃথক টুইট বার্তায় এই সমঝোতার তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ব্রেক্সিট ইস্যুতে সমঝোতায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়ে চলতি বছরের গত মে মাসে পদত্যাগের ঘোষণা দেন যুক্তরাজ্যের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। তিনি সরে দাঁড়ানোর পর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন কট্টর ব্রেক্সিটপন্থী কনজারভেটিভ নেতা বরিস জনসন। নির্বাচিত হওয়ার পর আগামী ৩১ অক্টোবর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের ঘোষণা দেন তিনি। প্রয়োজনে চুক্তিবিহীন ব্রেক্সিটেরও ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার ব্রাসেলসে শুরু হচ্ছে ইইউ নেতাদের সম্মেলন। সম্মেলনকে সামনে রেখে চুক্তির খসড়া তৈরিতে আলোচনা শুরু করে দুই পক্ষ। সেখানেই দুই পক্ষের প্রতিনিধিরা চুক্তির বিষয়ে সমঝোতায় পৌঁছান। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এক টুইট বার্তায় সেই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ‘আমরা দুর্দান্ত একটা সমঝোতায় আমরা পৌঁছেছি, পরিস্থিতির ওপর নিয়ন্ত্রণও ফিরেছে।’ 

অপর এক টুইট বার্তায় জঁ-ক্লোদ ইয়ুংকার বলেন, ‘ইচ্ছা থাকলেই চুক্তি স্বাক্ষর সম্ভব-আমরা সেটা পারব। এটা যুক্তরাজ্য ও ইইউ-এর মধ্যে একটি স্বচ্ছ ও ভারসাম্যপূর্ণ সমঝোতা। সংকট উত্তোরণের পথ খোঁজার ক্ষেত্রে এটা আমাদের প্রতিশ্রুতির প্রতিফলন। চুক্তি অনুমোদনে তৎপর হতে আমি ইউরোপীয়ান কাউন্সিলের কাছে সুপারিশ করছি’।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দুই পক্ষের প্রতিনিধিরা এখন ওই আইনি দিকগুলো নিয়ে কাজ করছেন। তবে চূড়ান্ত চুক্তি হওয়ার আগে তাতে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট ও ইউরোপীয় পার্লামেন্টের অনুমোদন নিতে হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা