kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

শতাব্দীর ভয়ঙ্করতম ঘূর্ণিঝড়ে আছড়ে পড়ল ৪৫ ফুটের ঢেউ!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ১২:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শতাব্দীর ভয়ঙ্করতম ঘূর্ণিঝড়ে আছড়ে পড়ল ৪৫ ফুটের ঢেউ!

মেঘ নয় ৪৫ ফুটের ঢেউ

গতকাল জাপানে আঘাত হেনেছে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় 'হাগিবিস'। ঘণ্টায় ২০০ কিলোমিটার গতিতে  আছড়ে পড়েছে  এই সামুদ্রিক ঝড়। একে শতাব্দীর ভয়ঙ্করতম ঘূর্ণিঝড় আখ্যা দিয়েছে নাসা। নাসা বলছে, এই শতাব্দীতে এমন ভয়ঙ্কর টাইফুন হয়নি। প্রায় ৪৫ ফুট উচ্চতার ঢেউ আছড়ে পড়ে সমুদ্রতটে। 'হাগিবিসে'র তাণ্ডবে লন্ডভন্ড হয়ে যায় জাপানের ইচিহারা শহর। 

জাপান প্রশাসনের পক্ষ থেকে আগাম ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল। আর এই প্রশাসনিক তৎপরতায় ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে। তাই প্রাণহানি অপেক্ষাকৃত কম হয়েছে। তবে প্রাণহানি একেবারে রুখতে পারেনি প্রশাসন। মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের। আহত হয়েছেন শতাধিক। মৃতের সংখ্যা বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। 

শনিবার রাতে এই শক্তিশালী ঝড় আছড়ে পড়ার পর উদ্ধারকার্য চালাচ্ছে প্রশাসন। প্রবল ঝড়ে ৪৫ ফুট উচ্চতায় ঢেউ প্রবল বেগে আছড়ে পড়েছে 'হাগিবিস'। এই শক্তিশালী টাইফুনের প্রভাবে ব্যাপক বৃষ্টি শুরু হয়েছে। সেই সঙ্গে নামছে ধস। বিস্তীর্ণ এলাকায় তৈরি হয়েছে বন্যা পরিস্থিতি। 

জাপানের আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে এত বৃষ্টি আগে কখনও দেখেনি জাপান। সমুদ্রের জলোচ্ছ্বাসও হচ্ছে। ৪৫ ফুট উচ্চতায় ঢেউ আছড়ে পড়েছে সমুদ্রতটে। 

'হাগিবিসে'র হানা থেকে রক্ষা পেতে দেড় কোটিরও বেশি মানুষকে নিরাপদস্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। তা সত্ত্বেও প্রাণহানি রোখা সম্ভব হয়নি। মৃত্যুর পাশাপাশি শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন। এখনও অনেক মানুষ আটকে রয়েছেন। তাঁদের উদ্ধারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। 

জানা গেছে, 'হাগিবিস' সবচেয়ে বেশি তাণ্ডব চালায় জাপানের ইচিহারা শহরে। এই শহরের ১২টি বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৯০টি বাড়ি। বেশ কিছু মানুষের খোঁজ মিলছে না। উদ্ধার করা হয়েছে বেশ কয়েকজনকে। গোতেম্বা শহরে এই ঝড়ের দাপটে ড্রেনে ভেসে গেছে এক ব্যক্তি। 

সূত্র : ওয়ান ইন্ডিয়া 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা